বুধবার, ২১শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৯ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সকাল ১১:৪২
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Monday, July 24, 2017 7:33 am
A- A A+ Print

সরকার পরিবর্তনের সময় এসে গেছে,দিল্লি থেকে ফিরে এরশাদ

ershad-at-airport-(1)_53021_1500827957

জাতীয় পার্টিকে ক্ষমতায় দেখতে চায়।’ তিনি আরও বলেন, ‘আওয়ামী লীগ ও বিএনপির পাল্টাপাল্টি আচরণের জন্য দেশ বিপদগামী হচ্ছে। তাদের ক্ষমতা থেকে হটাতে হবে। ভারত এ ক্ষেত্রে জাতীয় পার্টিকে সব ধরনের সহায়তা করবে।’ এরশাদ বলেন, ‘দেশের মানুষের পাশাপাশি বিদেশি বন্ধুরাও বাংলাদেশে জাতীয় পার্টির সরকার দেখতে চায়।’ রোববার দিল্লি সফর শেষে দেশে ফিরলে হযরত শাহজালাল (রহ.) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের সামনের সড়কে জাতীয় পার্টির উদ্যোগে দেয়া সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। বিমানবন্দর সড়কের সামনে ট্রাকের ওপর নির্মিত অস্থায়ী মঞ্চে দাঁড়িয়ে উপস্থিত দলের হাজার হাজার নেতাকর্মী এবং সমর্থকদের উদ্দেশে এরশাদ আরও বলেন, ‘আজকের জনসমাগম দেখে বোঝাই যায় আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মধ্য দিয়ে জাতীয় পার্টি ক্ষমতায় আসবে।’ তিনি বলেন, ‘আপনারা আমাকে ভোট দিন, আমি সন্ত্রাস, বিবাদমুক্ত, শান্তিপূর্ণ বাংলাদেশ উপহার দেব।’ জাতীয় পার্টি ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি ও সংবর্ধনা অনুষ্ঠান বাস্তবায়ন কমিটির আহ্বায়ক সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা এমপির সভাপতিত্বে এ সময় আরও বক্তব্য রাখেন পার্টির কো-চেয়ারম্যান জিএম কাদের, মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার এমপি, মহানগর উত্তরের সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম সেন্টু। ১৯ জুলাই পাঁচ দিনের ব্যক্তিগত সফরে দিল্লি যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। রোববার বিকালে তিনি ঢাকায় ফেরেন। তার সঙ্গে গেছেন পার্টির মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার এমপি, প্রেসিডিয়াম সদস্য ও চেয়ারম্যানের প্রেস অ্যান্ড পলিটিক্যাল সেক্রেটারি সুনীল শুভ রায় এবং প্রেসিডিয়াম সদস্য মেজর মো. খালেদ আখতার (অব.)। সফরকালে এরশাদ আজমির শরিফে হজরত খাজা মঈনুদ্দীন চিশতির (রহ.) পবিত্র মাজার জিয়ারত করা ছাড়াও বিজেপি সরকারের একাধিক গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তির সঙ্গে বৈঠক করেন। পার্টি চেয়ারম্যানের দিল্লি সফর উপলক্ষে দলীয়ভাবে সিদ্ধান্ত নেয়া হয় দেশে ফেরার দিন তাকে বিমানবন্দরেই সংবর্ধনা দেয়ার। এর অংশ হিসেবে দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়া উপেক্ষা করে দলের বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মী হুসেইন মুহম্মদ এরশাদকে সংবর্ধনা দেন। এরশাদ এ সময় আরও বলেন, ‘জাতীয় পার্টি বাংলাদেশে একমাত্র উদার গণতান্ত্রিক দল। বিএনপি আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে কথা বলে, আবার আওয়ামী লীগ বিএনপির বিরুদ্ধে কথা বলে। তাই দেশবাসী দুটি দলের কোনোটিকেই আর ক্ষমতায় দেখতে চায় না।’ তিনি বলেন, ‘এই জনসমুদ্র প্রমাণ করে জাতীয় পার্টি ক্ষমতার জন্য প্রস্তুত। জাতীয় পার্টি বর্তমানে অনেক শক্তিশালী দল।’ সংবর্ধনা উপলক্ষে দুপুরের পর থেকেই জাতীয় পার্টি ঢাকা মহানগর দক্ষিণ এবং উত্তরের বিভিন্ন থানা এবং ওয়ার্ডের নেতাকর্মীরা খণ্ড খণ্ড মিছিল নিয়ে বিমানবন্দর সড়কে অবস্থান নিতে থাকেন। ঢাকার পার্শ্ববর্তী বিভিন্ন জেলা থেকেও নেতাকর্মীরা মিছিল নিয়ে গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে যোগ দেন। বিকাল হতেই ঢাকা-১ আসনের সংসদ সদস্য ও জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট সালমা ইসলামের নির্বাচনী এলাকা দোহার এবং নবাবগঞ্জ, ঢাকা-৪ আসনের সংসদ সদস্য সৈয়দ আবু হোসেন বাবলার নির্বাচনী এলাকা শ্যামপুর ও কদমতলী থেকে দুটি বিশাল মিছিল বিমানবন্দর সড়কে এলে পুরো এলাকা লোকে লোকারণ্য হয়ে যায়। এ ছাড়া ঢাকা-৫ আসন থেকে জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য মীর আবদুস সবুর আসুদ, সোনারগাঁওয়ের সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকার নেতৃত্বে স্বেচ্ছাসেবক পার্টি, আলমগীর শিকদার লোটনের নেতৃত্বে যুবসংহতি, একেএম আশরাফুজ্জামান খানের নেতৃত্বে শ্রমিক পার্টি, সৈয়দ আহতেখার আহসান হাসানের নেতৃত্বে জাতীয় ছাত্রসমাজের নেতাকর্মীরা গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে যোগ দেন। এ ছাড়াও সেকেন্দার আলী মনির নেতৃত্বে সম্মিলিত জাতীয় জোটের অন্যতম শরিক দল বিএনএ গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে যোগ দেয়। পার্টির মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার বলেন, আমাদের সফর সফল হয়েছে। তিনি বলেন, দিল্লিতে আমাদের সঙ্গে অনেকেরই কথা হয়েছে। তারা বলেছে, বাংলাদেশে জাতীয় পার্টি দেশপ্রেমিক জাতীয়তাবাদী শক্তি। সভাপতির বক্তব্যে সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা বলেন, ‘দিল্লি সফরকে আগামী জাতীয় রাজনীতির জন্য গুরুত্বপূর্ণ মনে করেই এ সংবর্ধনা দেয়া হয়েছে। ভারতের একটি ভূমিকা আমাদের নির্বাচনে থাকে বলে দেশের সাধারণ মানুষের বিশ্বাস।’ পার্টি চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট রেজাউল ইসলাম ভূইয়া ও যুগ্ম মহাসচিব গোলাম মোহাম্মদ রাজুর পরিচালনায় এ সময় উপস্থিত ছিলেন পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট কাজী ফিরোজ রশীদ, সাহিদুর রহমান টেপা, মশিউর রহমান রাঙ্গা, সুনীল শুভ রায়, মীর আবদুস সবুর আসুদ, নাসরিন জাহান রতœা, মেজর (অব:) খালেদ আক্তার, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব লিয়াকত হোসেন খোকা, যুগ্ম মহাসচিব ইকবাল হোসেন রাজু, আরিফ খান, জহিরুল ইসলাম জহির, আলমগীর শিকদার লোটন, জহিরুল আলম রুবেল, ফখরুল ইসলাম সাহজাদা, বেলাল হোসেন, একেএম আশরাফুজ্জামান খান, ইসহাক ভূইয়া, সুজন দে, মিজানুর রহমান মিরু, গোলাম মোস্তফা আঙ্গুর, কামাল হোসেন প্রমুখ।

Comments

Comments!

 সরকার পরিবর্তনের সময় এসে গেছে,দিল্লি থেকে ফিরে এরশাদAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

সরকার পরিবর্তনের সময় এসে গেছে,দিল্লি থেকে ফিরে এরশাদ

Monday, July 24, 2017 7:33 am
ershad-at-airport-(1)_53021_1500827957

জাতীয় পার্টিকে ক্ষমতায় দেখতে চায়।’ তিনি আরও বলেন, ‘আওয়ামী লীগ ও বিএনপির পাল্টাপাল্টি আচরণের জন্য দেশ বিপদগামী হচ্ছে। তাদের ক্ষমতা থেকে হটাতে হবে। ভারত এ ক্ষেত্রে জাতীয় পার্টিকে সব ধরনের সহায়তা করবে।’ এরশাদ বলেন, ‘দেশের মানুষের পাশাপাশি বিদেশি বন্ধুরাও বাংলাদেশে জাতীয় পার্টির সরকার দেখতে চায়।’

রোববার দিল্লি সফর শেষে দেশে ফিরলে হযরত শাহজালাল (রহ.) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের সামনের সড়কে জাতীয় পার্টির উদ্যোগে দেয়া সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। বিমানবন্দর সড়কের সামনে ট্রাকের ওপর নির্মিত অস্থায়ী মঞ্চে দাঁড়িয়ে উপস্থিত দলের হাজার হাজার নেতাকর্মী এবং সমর্থকদের উদ্দেশে এরশাদ আরও বলেন, ‘আজকের জনসমাগম দেখে বোঝাই যায় আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মধ্য দিয়ে জাতীয় পার্টি ক্ষমতায় আসবে।’ তিনি বলেন, ‘আপনারা আমাকে ভোট দিন, আমি সন্ত্রাস, বিবাদমুক্ত, শান্তিপূর্ণ বাংলাদেশ উপহার দেব।’

জাতীয় পার্টি ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি ও সংবর্ধনা অনুষ্ঠান বাস্তবায়ন কমিটির আহ্বায়ক সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা এমপির সভাপতিত্বে এ সময় আরও বক্তব্য রাখেন পার্টির কো-চেয়ারম্যান জিএম কাদের, মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার এমপি, মহানগর উত্তরের সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম সেন্টু।

১৯ জুলাই পাঁচ দিনের ব্যক্তিগত সফরে দিল্লি যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। রোববার বিকালে তিনি ঢাকায় ফেরেন। তার সঙ্গে গেছেন পার্টির মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার এমপি, প্রেসিডিয়াম সদস্য ও চেয়ারম্যানের প্রেস অ্যান্ড পলিটিক্যাল সেক্রেটারি সুনীল শুভ রায় এবং প্রেসিডিয়াম সদস্য মেজর মো. খালেদ আখতার (অব.)। সফরকালে এরশাদ আজমির শরিফে হজরত খাজা মঈনুদ্দীন চিশতির (রহ.) পবিত্র মাজার জিয়ারত করা ছাড়াও বিজেপি সরকারের একাধিক গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তির সঙ্গে বৈঠক করেন।

পার্টি চেয়ারম্যানের দিল্লি সফর উপলক্ষে দলীয়ভাবে সিদ্ধান্ত নেয়া হয় দেশে ফেরার দিন তাকে বিমানবন্দরেই সংবর্ধনা দেয়ার। এর অংশ হিসেবে দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়া উপেক্ষা করে দলের বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মী হুসেইন মুহম্মদ এরশাদকে সংবর্ধনা দেন।

এরশাদ এ সময় আরও বলেন, ‘জাতীয় পার্টি বাংলাদেশে একমাত্র উদার গণতান্ত্রিক দল। বিএনপি আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে কথা বলে, আবার আওয়ামী লীগ বিএনপির বিরুদ্ধে কথা বলে। তাই দেশবাসী দুটি দলের কোনোটিকেই আর ক্ষমতায় দেখতে চায় না।’ তিনি বলেন, ‘এই জনসমুদ্র প্রমাণ করে জাতীয় পার্টি ক্ষমতার জন্য প্রস্তুত। জাতীয় পার্টি বর্তমানে অনেক শক্তিশালী দল।’

সংবর্ধনা উপলক্ষে দুপুরের পর থেকেই জাতীয় পার্টি ঢাকা মহানগর দক্ষিণ এবং উত্তরের বিভিন্ন থানা এবং ওয়ার্ডের নেতাকর্মীরা খণ্ড খণ্ড মিছিল নিয়ে বিমানবন্দর সড়কে অবস্থান নিতে থাকেন।

ঢাকার পার্শ্ববর্তী বিভিন্ন জেলা থেকেও নেতাকর্মীরা মিছিল নিয়ে গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে যোগ দেন। বিকাল হতেই ঢাকা-১ আসনের সংসদ সদস্য ও জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট সালমা ইসলামের নির্বাচনী এলাকা দোহার এবং নবাবগঞ্জ, ঢাকা-৪ আসনের সংসদ সদস্য সৈয়দ আবু হোসেন বাবলার নির্বাচনী এলাকা শ্যামপুর ও কদমতলী থেকে দুটি বিশাল মিছিল বিমানবন্দর সড়কে এলে পুরো এলাকা লোকে লোকারণ্য হয়ে যায়।

এ ছাড়া ঢাকা-৫ আসন থেকে জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য মীর আবদুস সবুর আসুদ, সোনারগাঁওয়ের সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকার নেতৃত্বে স্বেচ্ছাসেবক পার্টি, আলমগীর শিকদার লোটনের নেতৃত্বে যুবসংহতি, একেএম আশরাফুজ্জামান খানের নেতৃত্বে শ্রমিক পার্টি, সৈয়দ আহতেখার আহসান হাসানের নেতৃত্বে জাতীয় ছাত্রসমাজের নেতাকর্মীরা গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে যোগ দেন। এ ছাড়াও সেকেন্দার আলী মনির নেতৃত্বে সম্মিলিত জাতীয় জোটের অন্যতম শরিক দল বিএনএ গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে যোগ দেয়।
পার্টির মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার বলেন, আমাদের সফর সফল হয়েছে। তিনি বলেন, দিল্লিতে আমাদের সঙ্গে অনেকেরই কথা হয়েছে। তারা বলেছে, বাংলাদেশে জাতীয় পার্টি দেশপ্রেমিক জাতীয়তাবাদী শক্তি।

সভাপতির বক্তব্যে সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা বলেন, ‘দিল্লি সফরকে আগামী জাতীয় রাজনীতির জন্য গুরুত্বপূর্ণ মনে করেই এ সংবর্ধনা দেয়া হয়েছে। ভারতের একটি ভূমিকা আমাদের নির্বাচনে থাকে বলে দেশের সাধারণ মানুষের বিশ্বাস।’

পার্টি চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট রেজাউল ইসলাম ভূইয়া ও যুগ্ম মহাসচিব গোলাম মোহাম্মদ রাজুর পরিচালনায় এ সময় উপস্থিত ছিলেন পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট কাজী ফিরোজ রশীদ, সাহিদুর রহমান টেপা, মশিউর রহমান রাঙ্গা, সুনীল শুভ রায়, মীর আবদুস সবুর আসুদ, নাসরিন জাহান রতœা, মেজর (অব:) খালেদ আক্তার, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব লিয়াকত হোসেন খোকা, যুগ্ম মহাসচিব ইকবাল হোসেন রাজু, আরিফ খান, জহিরুল ইসলাম জহির, আলমগীর শিকদার লোটন, জহিরুল আলম রুবেল, ফখরুল ইসলাম সাহজাদা, বেলাল হোসেন, একেএম আশরাফুজ্জামান খান, ইসহাক ভূইয়া, সুজন দে, মিজানুর রহমান মিরু, গোলাম মোস্তফা আঙ্গুর, কামাল হোসেন প্রমুখ।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X