শনিবার, ২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১২ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, বিকাল ৪:০১
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Saturday, January 28, 2017 6:50 pm
A- A A+ Print

সার্চ কমিটির বিরোধীরা ভ্রান্ত এবং রাবিশ : অর্থমন্ত্রী

43

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, ‘নিরপেক্ষ এবং নতুন নির্বাচন কমিশন গঠনের জন্য রাষ্ট্রপতির নির্দেশে একটি সার্চ কমিটি গঠন করা হয়েছে। এই সার্চ কমিটি নিয়ে অনেকেই না জেনে, না বুঝে বিরূপ মন্তব্য করছেন। এসব মন্তব্য ভ্রান্ত এবং রাবিশ। এরা দেশের অগ্রগতি সহ্য করতে পারছেন না।’ শনিবার দুপুরে হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ যুগল কিশোর (জে কে) উচ্চ বিদ্যালয়ের শতবর্ষপূর্তি অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির এসব কথা বলেন অর্থমন্ত্রী। শতবর্ষপূর্তি অনুষ্ঠানের আহ্বায়ক ও নবীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান আলমগীর চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন হবিগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য মো. আবু জাহির, হবিগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য এম এ মুনিম চৌধুরী। অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন- সিলেট এমসি কলেজের অধ্যক্ষ ড. আবুল ফজল ফাত্তাহ, হবিগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ডা. মুশফিক হোসেন চৌধুরী, জেলা প্রশাসক সাবিনা আলম ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এ এস এম শামছুল ইসলাম ভূইয়া। অর্থমন্ত্রীকে বহনকারী হেলিকপ্টারটি কানাইপুর হেলিপ্যাডে শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় অবতরণের কথা থাকলেও কুয়াশার কারণে তা সকাল ১১টায় অবতরণ করে। এরপর পুলিশের একটি চৌকস দল তাকে গার্ড অব অনার প্রদান করে। পরে অর্থমন্ত্রী বেলুন উড়িয়ে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন। শত বছরের পুরনো এ বিদ্যালয়টি ১৯১৬ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। বিদ্যালয়ের শতবর্ষপূর্তি অনুষ্ঠান উপলক্ষে ২৭ ও ২৮ জানুয়ারি দুই দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাধীনতাযুদ্ধের বীর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। এ ছাড়াও একটি স্মরণকিা ও একটি বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করা হয়। অনুষ্ঠানে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘যে সার্চ কমিটি গঠন করা হয়েছে তা অত্যন্ত নিরপেক্ষ এবং খুবই ভালো। কমিটির প্রত্যেক সদস্যই সমাজে গ্রহণযোগ্য, অত্যন্ত জ্ঞানী-গুণী ও ভালো লোক।’ আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেন, বর্তমান সরকারে সময়ে দেশে দারিদ্র্য বিমোচনে উল্লেখযোগ্য কাজ হয়েছে। যা আন্তর্জাতিকভাবেও স্বীকৃত। এক সময় দেশের ৭০ শতাংশ মানুষ দারিদ্র্যসীমার নিচে বাস করত। এখন অনেক কমে এসেছে। আশা করছি, আগামী ১০ বছরের মধ্যে দেশে কোনো দারিদ্র্য থাকবে না। তিনি বলেন, ‘শিক্ষার কোনো বিকল্প নেই। বর্তমান সরকার শিাক্ষার ওপর সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিয়েছে। তথ্যপ্রযুক্তির সর্বোচ্চ ব্যবহার করে দেশকে ডিজিটাল দেশে রূপান্তরিত করা হয়েছে। যেকোনো বিষয়ে জ্ঞান বাড়াতে তথ্য-প্রযুক্তি সহায়ক ভূমিকা রাখছে। বিশেষ করে, আমাদের শিক্ষার্থীরা প্রতিযোগিতামূলক শিক্ষাব্যবস্থায় সুনাম অর্জন করছে।’ শিক্ষার্থীদের অর্থমন্ত্রী উদ্দেশে বলেন, ‘আপনারা যারা এখন পড়ালেখা করছেন তারা অত্যন্ত ভাগ্যবান। হাত বাড়ালেই সব পাওয়া যায়। কিন্তু একটা সময় এ সুযোগ ছিল না। শিক্ষার্থীদেও অনেক কষ্ট করতে হতো। আর এ কারণেই এ অঞ্চলের ধনাঢ্য ব্যক্তিরা এই প্রতিষ্ঠানটি গড়ে তুলে ছিলেন।’ অর্থমন্ত্রী শত বছর আগে নবীগঞ্জের মত একটি অজপাড়াগাঁওয়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান স্থাপনের সঙ্গে জড়িতদের শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করেন। অনুষ্ঠানে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি এবং অন্যান্য বক্তারা স্কুল ও কলেজের ছাত্রবাস, গবেষণাগার নির্মাণসহ বেশকিছু দাবি তুলে ধরেন। অর্থমন্ত্রী অনুষ্ঠান শেষে ঢাকা ফিরে আসেন।

Comments

Comments!

 সার্চ কমিটির বিরোধীরা ভ্রান্ত এবং রাবিশ : অর্থমন্ত্রীAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

সার্চ কমিটির বিরোধীরা ভ্রান্ত এবং রাবিশ : অর্থমন্ত্রী

Saturday, January 28, 2017 6:50 pm
43

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, ‘নিরপেক্ষ এবং নতুন নির্বাচন কমিশন গঠনের জন্য রাষ্ট্রপতির নির্দেশে একটি সার্চ কমিটি গঠন করা হয়েছে। এই সার্চ কমিটি নিয়ে অনেকেই না জেনে, না বুঝে বিরূপ মন্তব্য করছেন। এসব মন্তব্য ভ্রান্ত এবং রাবিশ। এরা দেশের অগ্রগতি সহ্য করতে পারছেন না।’

শনিবার দুপুরে হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ যুগল কিশোর (জে কে) উচ্চ বিদ্যালয়ের শতবর্ষপূর্তি অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির এসব কথা বলেন অর্থমন্ত্রী।

শতবর্ষপূর্তি অনুষ্ঠানের আহ্বায়ক ও নবীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান আলমগীর চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন হবিগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য মো. আবু জাহির, হবিগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য এম এ মুনিম চৌধুরী।

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন- সিলেট এমসি কলেজের অধ্যক্ষ ড. আবুল ফজল ফাত্তাহ, হবিগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ডা. মুশফিক হোসেন চৌধুরী, জেলা প্রশাসক সাবিনা আলম ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এ এস এম শামছুল ইসলাম ভূইয়া।

অর্থমন্ত্রীকে বহনকারী হেলিকপ্টারটি কানাইপুর হেলিপ্যাডে শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় অবতরণের কথা থাকলেও কুয়াশার কারণে তা সকাল ১১টায় অবতরণ করে। এরপর পুলিশের একটি চৌকস দল তাকে গার্ড অব অনার প্রদান করে। পরে অর্থমন্ত্রী বেলুন উড়িয়ে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন।

শত বছরের পুরনো এ বিদ্যালয়টি ১৯১৬ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। বিদ্যালয়ের শতবর্ষপূর্তি অনুষ্ঠান উপলক্ষে ২৭ ও ২৮ জানুয়ারি দুই দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাধীনতাযুদ্ধের বীর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। এ ছাড়াও একটি স্মরণকিা ও একটি বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করা হয়।

অনুষ্ঠানে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘যে সার্চ কমিটি গঠন করা হয়েছে তা অত্যন্ত নিরপেক্ষ এবং খুবই ভালো। কমিটির প্রত্যেক সদস্যই সমাজে গ্রহণযোগ্য, অত্যন্ত জ্ঞানী-গুণী ও ভালো লোক।’

আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেন, বর্তমান সরকারে সময়ে দেশে দারিদ্র্য বিমোচনে উল্লেখযোগ্য কাজ হয়েছে। যা আন্তর্জাতিকভাবেও স্বীকৃত। এক সময় দেশের ৭০ শতাংশ মানুষ দারিদ্র্যসীমার নিচে বাস করত। এখন অনেক কমে এসেছে। আশা করছি, আগামী ১০ বছরের মধ্যে দেশে কোনো দারিদ্র্য থাকবে না।

তিনি বলেন, ‘শিক্ষার কোনো বিকল্প নেই। বর্তমান সরকার শিাক্ষার ওপর সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিয়েছে। তথ্যপ্রযুক্তির সর্বোচ্চ ব্যবহার করে দেশকে ডিজিটাল দেশে রূপান্তরিত করা হয়েছে। যেকোনো বিষয়ে জ্ঞান বাড়াতে তথ্য-প্রযুক্তি সহায়ক ভূমিকা রাখছে। বিশেষ করে, আমাদের শিক্ষার্থীরা প্রতিযোগিতামূলক শিক্ষাব্যবস্থায় সুনাম অর্জন করছে।’

শিক্ষার্থীদের অর্থমন্ত্রী উদ্দেশে বলেন, ‘আপনারা যারা এখন পড়ালেখা করছেন তারা অত্যন্ত ভাগ্যবান। হাত বাড়ালেই সব পাওয়া যায়। কিন্তু একটা সময় এ সুযোগ ছিল না। শিক্ষার্থীদেও অনেক কষ্ট করতে হতো। আর এ কারণেই এ অঞ্চলের ধনাঢ্য ব্যক্তিরা এই প্রতিষ্ঠানটি গড়ে তুলে ছিলেন।’

অর্থমন্ত্রী শত বছর আগে নবীগঞ্জের মত একটি অজপাড়াগাঁওয়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান স্থাপনের সঙ্গে জড়িতদের শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করেন।

অনুষ্ঠানে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি এবং অন্যান্য বক্তারা স্কুল ও কলেজের ছাত্রবাস, গবেষণাগার নির্মাণসহ বেশকিছু দাবি তুলে ধরেন। অর্থমন্ত্রী অনুষ্ঠান শেষে ঢাকা ফিরে আসেন।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X