রবিবার, ১৮ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৬ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ৩:১৬
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Sunday, December 11, 2016 11:51 pm | আপডেটঃ December 12, 2016 2:45 AM
A- A A+ Print

সুনামিতে মুহূর্তেই ধ্বংস হয়ে যেতে পারে নিউইয়র্ক

photo-1481475744

স্পেনে ভূমিধসের কারণে সৃষ্ট ‘মেগাসুনামি’র ঢেউ যেকোনো সময় যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক ও মিয়ামি শহর নিশ্চিহ্ন করে দিতে পারে। এক বিশেষজ্ঞ এ দাবি করেছেন। ইউনিভার্সিটি লন্ডন কলেজের দুর্যোগবিষয়ক বিশেষজ্ঞ ড. সিমন ডে বলেছেন, ‘ক্যানারি দ্বীপপুঞ্জে কামব্রি ভিয়েজা আগ্নেয়গিরির অগ্নুৎপাতের কারণে ভূমিধসের সম্ভাবনা রয়েছে। আর এই ভূমিধসের কারণে আটলান্টিকজুড়ে সুনামির আশঙ্কা রয়েছে।’ এই বিশেষজ্ঞ বলেন, ‘এই মহাপ্রলয় ১০ ফুট (৩ মিটার) উঁচু ঢেউ সৃষ্টি করে ব্রিটেনের দক্ষিণ-পশ্চিম উপকূলে আঘাত হানতে পারে। যদি মরক্কোর পশ্চিম উপকূল থেকে মাত্র ৬০ মাইল দূরে আটলান্টিক মহাসাগরের তীরে অবস্থিত স্পেনের কাছে ক্যানারি দ্বীপপুঞ্জে একটি ভূমিধস হয় তাহলে এই সুনামি আঘাত হানবে।’ নিউইয়র্ক, বোস্টন ও মিয়ামি, সেই সঙ্গে ক্যারিবীয় দ্বীপপুঞ্জে ধ্বংসলীলা চালাতে পারে এই ভয়াবহ সুনামি। এ ছাড়া মধ্য ও দক্ষিণ আমেরিকার দেশগুলোতেও আঘাত হানতে পারে বলে এই বিজ্ঞানী সতর্ক করে দিয়েছেন। সিমন ডে বলেন, কামব্রি ভিয়েজা আগ্নেয়গিরি সমুদ্রে এক খণ্ড জমির মতো, যা স্বায়ত্ত্বশাসিত অঞ্চল ‘আইল অব ম্যানের’ আয়তনের সমান। এর কারণে একটি উঁচু পানির দেয়াল সৃষ্টি হবে, যেমনটি জনপ্রিয় চলচ্চিত্র ‘দ্য ডে আফটার টুমোরোতে’ দেখানো হয়েছে। সিমন ডেইলি এক্সপ্রেসকে বলেছেন, ‘একটি ঢেউ বক্ররেখায় ব্রিটেনের দিকে যেতে পারে। কিন্তু এটি আমেরিকার ওপর বড় ধরনের আঘাত হানবে।’ ড. সিমন ১৫ বছর গবেষণা শেষে এই তথ্য জানিয়েছেন। তিনি স্বীকার করেছেন, অনেকেই তাঁর এই গবেষণার তথ্যকে ইতিবাচকভাবে নেয়নি। তিনি বলেন, ‘এটি বিতর্কের ১৫ বছর। এখানে অনেক বিষয় রয়েছে। কিন্তু এখানে আমার মতই তুলে ধরা হয়েছে।’ এ ব্যাপারে ড. সিমন সবাইকে প্রস্তুত থাকার পরামর্শ দিয়েছেন। তাঁর এই গবেষণা তথ্যের ব্যাপারে অনেকে দ্বিমত পোষণ করলেও মার্কিন কর্তৃপক্ষ এটাকে বেশ আমলে নিয়েছে। মার্কিন ভূতাত্বিক জরিপ সংস্থা এবং জাতীয় সমুদ্র ও বায়ুমণ্ডলবিষয়ক প্রশাসন (এনওএএ) উপকূলে বসবাসরত অধিবাসীদের এই ধরনের দুর্যোগ মোকাবিলায় প্রস্তুতি নিতে বলেছে।

Comments

Comments!

 সুনামিতে মুহূর্তেই ধ্বংস হয়ে যেতে পারে নিউইয়র্কAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

সুনামিতে মুহূর্তেই ধ্বংস হয়ে যেতে পারে নিউইয়র্ক

Sunday, December 11, 2016 11:51 pm | আপডেটঃ December 12, 2016 2:45 AM
photo-1481475744

স্পেনে ভূমিধসের কারণে সৃষ্ট ‘মেগাসুনামি’র ঢেউ যেকোনো সময় যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক ও মিয়ামি শহর নিশ্চিহ্ন করে দিতে পারে। এক বিশেষজ্ঞ এ দাবি করেছেন।

ইউনিভার্সিটি লন্ডন কলেজের দুর্যোগবিষয়ক বিশেষজ্ঞ ড. সিমন ডে বলেছেন, ‘ক্যানারি দ্বীপপুঞ্জে কামব্রি ভিয়েজা আগ্নেয়গিরির অগ্নুৎপাতের কারণে ভূমিধসের সম্ভাবনা রয়েছে। আর এই ভূমিধসের কারণে আটলান্টিকজুড়ে সুনামির আশঙ্কা রয়েছে।’

এই বিশেষজ্ঞ বলেন, ‘এই মহাপ্রলয় ১০ ফুট (৩ মিটার) উঁচু ঢেউ সৃষ্টি করে ব্রিটেনের দক্ষিণ-পশ্চিম উপকূলে আঘাত হানতে পারে। যদি মরক্কোর পশ্চিম উপকূল থেকে মাত্র ৬০ মাইল দূরে আটলান্টিক মহাসাগরের তীরে অবস্থিত স্পেনের কাছে ক্যানারি দ্বীপপুঞ্জে একটি ভূমিধস হয় তাহলে এই সুনামি আঘাত হানবে।’

নিউইয়র্ক, বোস্টন ও মিয়ামি, সেই সঙ্গে ক্যারিবীয় দ্বীপপুঞ্জে ধ্বংসলীলা চালাতে পারে এই ভয়াবহ সুনামি। এ ছাড়া মধ্য ও দক্ষিণ আমেরিকার দেশগুলোতেও আঘাত হানতে পারে বলে এই বিজ্ঞানী সতর্ক করে দিয়েছেন।

সিমন ডে বলেন, কামব্রি ভিয়েজা আগ্নেয়গিরি সমুদ্রে এক খণ্ড জমির মতো, যা স্বায়ত্ত্বশাসিত অঞ্চল ‘আইল অব ম্যানের’ আয়তনের সমান। এর কারণে একটি উঁচু পানির দেয়াল সৃষ্টি হবে, যেমনটি জনপ্রিয় চলচ্চিত্র ‘দ্য ডে আফটার টুমোরোতে’ দেখানো হয়েছে।

সিমন ডেইলি এক্সপ্রেসকে বলেছেন, ‘একটি ঢেউ বক্ররেখায় ব্রিটেনের দিকে যেতে পারে। কিন্তু এটি আমেরিকার ওপর বড় ধরনের আঘাত হানবে।’

ড. সিমন ১৫ বছর গবেষণা শেষে এই তথ্য জানিয়েছেন। তিনি স্বীকার করেছেন, অনেকেই তাঁর এই গবেষণার তথ্যকে ইতিবাচকভাবে নেয়নি। তিনি বলেন, ‘এটি বিতর্কের ১৫ বছর। এখানে অনেক বিষয় রয়েছে। কিন্তু এখানে আমার মতই তুলে ধরা হয়েছে।’

এ ব্যাপারে ড. সিমন সবাইকে প্রস্তুত থাকার পরামর্শ দিয়েছেন। তাঁর এই গবেষণা তথ্যের ব্যাপারে অনেকে দ্বিমত পোষণ করলেও মার্কিন কর্তৃপক্ষ এটাকে বেশ আমলে নিয়েছে।

মার্কিন ভূতাত্বিক জরিপ সংস্থা এবং জাতীয় সমুদ্র ও বায়ুমণ্ডলবিষয়ক প্রশাসন (এনওএএ) উপকূলে বসবাসরত অধিবাসীদের এই ধরনের দুর্যোগ মোকাবিলায় প্রস্তুতি নিতে বলেছে।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X