রবিবার, ২৫শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১৩ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সকাল ১০:০৬
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Tuesday, November 8, 2016 1:59 am
A- A A+ Print

সুষমার চেষ্টায় বিয়ের পিঁড়িতে পাকিস্তানের কন্যা

09

বরের বাড়ি ভারতে। কনের বাড়ি পাকিস্তানে। বিয়ের দিন ছিল আজ সোমবার। কিন্তু সীমান্তে হত্যা আর গোলাগুলির পর দুই দেশের বৈরী সম্পর্কের কারণে ভিসা জটিলতায় বিয়েটা ভেস্তে যাওয়ার দশা হয়েছিল। বিয়ের অনুষ্ঠান ভারতে। কনে ও তাঁর পরিবারের সদস্যরা ভিসা পাচ্ছিলেন না। সমস্যা সমাধানের আশায় আশ্রয় নেওয়া হয় টুইটারের। টুইটের জবাবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ কনের পরিবারের ভিসার ব্যবস্থা করেন। ভারতে এসে সাত পাকে বাঁধা পড়েন ওই পাকিস্তানের কন্যা। বিবিসি ও এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, পাকিস্তানের করাচির মেয়ে প্রিয়া বচ্চানি ও ভারতের যোধপুরের নরেশ তিওয়ানির বাগদান হয়েছিল তিন বছর আগে। বিয়ের তারিখ ছিল আজ সোমবার। বিয়ের অনুষ্ঠানও ভারতে। কিন্তু ভিসা জটিলতায় মাস খানেক ধরে ঘোর অনিশ্চয়তায় ছিল প্রিয়া ও নরেশের পরিবার। কিন্তু ভারতে পৌঁছাতে পারবেন কি না, তা নিয়ে বেশ চিন্তিত ছিলেন প্রিয়া ও তাঁর পরিবারের সদস্যরা। কোনো উপায় না দেখে নরেশ ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজকে টুইট করে সাহায্য চান। নরেশ টুইটে জানান, প্রিয়া ও তাঁর স্বজনদের করাচিতে ভিসা দেওয়া হচ্ছে না। এগিয়ে আসেন সুষমা। সমাধান হয়ে যায়। বেজে ওঠে বিয়ের সানাই। নরেশ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর উদ্দেশে টুইট করেন, ‘ম্যাম, আমার বিয়ে ৭ নভেম্বর। আমার বাগদত্তার বাড়ি পাকিস্তানের করাচিতে। তার পরিবার ভারতে আসার ভিসা পাচ্ছে না। আপনিই এখন আমার ভরসা। অনুগ্রহ করে সাহায্য করুন।’ পরে টুইটে সুষমা জানিয়ে দেন, ‘উদ্বিগ্ন হয়ো না, আমরা ভিসার ব্যবস্থা করছি।’ সুষমা স্বরাজের নির্দেশে ভিসার ব্যবস্থা হয় প্রিয়াদের। গতকাল রোববার রাজস্থানে পৌঁছান প্রিয়া এবং তাঁর ৩৪ জন স্বজন। আজ সোমবার ধুমধামে নরেশ ও প্রিয়ার বিয়ে সম্পন্ন হয়। এর আগেও এমন অনেক সমস্যার সমাধান করেছেন সুষমা। .রোববার যোধপুর পৌঁছেই প্রিয়া বলেন, ‘আমি খুবই খুশি। এবার আমাদের পরিকল্পনামতো সব হবে।’ এ সম্পর্কে প্রিয়ার বাবা কানহাইয়া লাল তিওয়ানি বলেন, ‘বিয়ের আনন্দ ভুলে আমরা সবাই ব্যস্ত হয়ে পড়েছিলাম ভিসা পাওয়ার জন্য।’ এ বিষয়ে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সুষমাকে ধন্যবাদ জানিয়েছে প্রিয়ার পরিবার। উরিতে সন্ত্রাসী হামলায় ১৯ ভারতীয় সেনা নিহত হওয়ার পর থেকে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে উত্তেজনা চলছে। বেশ কয়েকবার লাইন অফ কন্ট্রোলে যুদ্ধবিরতির চুক্তি লঙ্ঘন করে হামলার ঘটনা ঘটেছে।  

Comments

Comments!

 সুষমার চেষ্টায় বিয়ের পিঁড়িতে পাকিস্তানের কন্যাAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

সুষমার চেষ্টায় বিয়ের পিঁড়িতে পাকিস্তানের কন্যা

Tuesday, November 8, 2016 1:59 am
09

বরের বাড়ি ভারতে। কনের বাড়ি পাকিস্তানে। বিয়ের দিন ছিল আজ সোমবার। কিন্তু সীমান্তে হত্যা আর গোলাগুলির পর দুই দেশের বৈরী সম্পর্কের কারণে ভিসা জটিলতায় বিয়েটা ভেস্তে যাওয়ার দশা হয়েছিল। বিয়ের অনুষ্ঠান ভারতে। কনে ও তাঁর পরিবারের সদস্যরা ভিসা পাচ্ছিলেন না। সমস্যা সমাধানের আশায় আশ্রয় নেওয়া হয় টুইটারের। টুইটের জবাবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ কনের পরিবারের ভিসার ব্যবস্থা করেন। ভারতে এসে সাত পাকে বাঁধা পড়েন ওই পাকিস্তানের কন্যা।

বিবিসি ও এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, পাকিস্তানের করাচির মেয়ে প্রিয়া বচ্চানি ও ভারতের যোধপুরের নরেশ তিওয়ানির বাগদান হয়েছিল তিন বছর আগে। বিয়ের তারিখ ছিল আজ সোমবার। বিয়ের অনুষ্ঠানও ভারতে। কিন্তু ভিসা জটিলতায় মাস খানেক ধরে ঘোর অনিশ্চয়তায় ছিল প্রিয়া ও নরেশের পরিবার। কিন্তু ভারতে পৌঁছাতে পারবেন কি না, তা নিয়ে বেশ চিন্তিত ছিলেন প্রিয়া ও তাঁর পরিবারের সদস্যরা। কোনো উপায় না দেখে নরেশ ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজকে টুইট করে সাহায্য চান। নরেশ টুইটে জানান, প্রিয়া ও তাঁর স্বজনদের করাচিতে ভিসা দেওয়া হচ্ছে না। এগিয়ে আসেন সুষমা। সমাধান হয়ে যায়। বেজে ওঠে বিয়ের সানাই।

নরেশ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর উদ্দেশে টুইট করেন, ‘ম্যাম, আমার বিয়ে ৭ নভেম্বর। আমার বাগদত্তার বাড়ি পাকিস্তানের করাচিতে। তার পরিবার ভারতে আসার ভিসা পাচ্ছে না। আপনিই এখন আমার ভরসা। অনুগ্রহ করে সাহায্য করুন।’ পরে টুইটে সুষমা জানিয়ে দেন, ‘উদ্বিগ্ন হয়ো না, আমরা ভিসার ব্যবস্থা করছি।’ সুষমা স্বরাজের নির্দেশে ভিসার ব্যবস্থা হয় প্রিয়াদের। গতকাল রোববার রাজস্থানে পৌঁছান প্রিয়া এবং তাঁর ৩৪ জন স্বজন। আজ সোমবার ধুমধামে নরেশ ও প্রিয়ার বিয়ে সম্পন্ন হয়। এর আগেও এমন অনেক সমস্যার সমাধান করেছেন সুষমা।

.রোববার যোধপুর পৌঁছেই প্রিয়া বলেন, ‘আমি খুবই খুশি। এবার আমাদের পরিকল্পনামতো সব হবে।’ এ সম্পর্কে প্রিয়ার বাবা কানহাইয়া লাল তিওয়ানি বলেন, ‘বিয়ের আনন্দ ভুলে আমরা সবাই ব্যস্ত হয়ে পড়েছিলাম ভিসা পাওয়ার জন্য।’ এ বিষয়ে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সুষমাকে ধন্যবাদ জানিয়েছে প্রিয়ার পরিবার।

উরিতে সন্ত্রাসী হামলায় ১৯ ভারতীয় সেনা নিহত হওয়ার পর থেকে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে উত্তেজনা চলছে। বেশ কয়েকবার লাইন অফ কন্ট্রোলে যুদ্ধবিরতির চুক্তি লঙ্ঘন করে হামলার ঘটনা ঘটেছে।

 

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X