বুধবার, ২১শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৯ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ১:২৮
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Monday, May 15, 2017 3:23 pm
A- A A+ Print

সেনানিবাস এলাকায় মলমূত্র ত্যাগ, ভিক্ষা করলে ২০ হাজার টাকা দণ্ড

photo-1494835511

সেনানিবাস এলাকায় প্রকাশ্যে মলমূত্র ত্যাগ, ভিক্ষাবৃত্তি ও মাতলামি করলে ২০ হাজার টাকা জরিমানার বিধান রেখে সেনানিবাস আইনের সংশোধনী মন্ত্রিসভায় অনুমোদন করা হয়েছে। আজ সোমবার বেলা ১১টায় সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদের সম্মেলন কক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে এ অনুমোদন দেওয়া হয়। প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় প্রস্তাবটি উপস্থাপন করেছিল। বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মো. শফিউল আলম সাংবাদিকদের বলেন, ১৯২৪ সালের আইন দ্বারা সেনানিবাস ক্যান্টনমেন্ট বোর্ড পরিচালিত হয়ে আসছে। দীর্ঘ ৯০ বছর পর আইনটি হালনাগাদ করা হচ্ছে। আইনের ৪৩টি ধারা সংশোধন করে সাজার মেয়াদ বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। শফিউল আলম জানান, ক্যান্টনমেন্ট বোর্ডের অধীন এলাকায় ট্রাফিক আইন ভাঙলে আগে ৫০ টাকা জরিমানা হতো। সংশোধনীতে তা বাড়িয়ে দুই থেকে পাঁচ হাজার টাকা করা হয়েছে। এ ছাড়া ওই এলাকায় স্থাপনা নির্মাণকাজে বিলম্ব করলে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করার প্রস্তাব করা হয়েছে। এ ছাড়া কেউ যদি খোলা মাংস বহন করে, তবে শাস্তি হিসেবে তাঁর ২০ হাজার টাকা অর্থদণ্ডের কথা বলা হয়েছে বলে জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব। শফিউল আলম আরো জানান, আগের আইন অনুযায়ী সেনানিবাস এলাকায় কেউ আতশবাজি করলে ৫০ টাকা জরিমানা করা হতো। বর্তমানে তা তিন হাজার টাকা করার প্রস্তাব করা হয়েছে। আইনে কারাভোগের মতো কোনো দণ্ড আছে কি-না এমন প্রশ্নের উত্তরে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, সব ধারায় অর্থদণ্ডের কথা বলা আছে। তবে কেউ যদি অর্থদণ্ড পরিশোধে ব্যর্থ হয়, তবে ক্যান্টনমেন্ট বোর্ড সে ক্ষেত্রে অন্য যেকোনো শাস্তির ব্যবস্থা করতে পারে। আইনটি প্রচলিত আইনের সঙ্গে সাংঘর্ষিক কি-না জানতে চাইলে শফিউল আলম বলেন, প্রচলিত কোনো আইনের সঙ্গে এটি সাংঘর্ষিক নয়। কেননা, প্রতিটি পৌরসভার এ ধরনের একটি আইন আছে। সেখানেও এ ধরনের অনেক ধারা থাকে। তা ছাড়া পুলিশ আইনেও এ ধরনের বিধানের কথা বলা আছে। মাতলামি করার শাস্তি পুলিশ আইনেও বলা আছে। সচিব জানান, আজকের বৈঠকে বাংলাদেশ ও সানমেরিনোর সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনের লক্ষ্যে একটি চুক্তির খসড়া অনুমোদন করা হয়েছে।

Comments

Comments!

 সেনানিবাস এলাকায় মলমূত্র ত্যাগ, ভিক্ষা করলে ২০ হাজার টাকা দণ্ডAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

সেনানিবাস এলাকায় মলমূত্র ত্যাগ, ভিক্ষা করলে ২০ হাজার টাকা দণ্ড

Monday, May 15, 2017 3:23 pm
photo-1494835511

সেনানিবাস এলাকায় প্রকাশ্যে মলমূত্র ত্যাগ, ভিক্ষাবৃত্তি ও মাতলামি করলে ২০ হাজার টাকা জরিমানার বিধান রেখে সেনানিবাস আইনের সংশোধনী মন্ত্রিসভায় অনুমোদন করা হয়েছে।

আজ সোমবার বেলা ১১টায় সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদের সম্মেলন কক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে এ অনুমোদন দেওয়া হয়। প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় প্রস্তাবটি উপস্থাপন করেছিল।

বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মো. শফিউল আলম সাংবাদিকদের বলেন, ১৯২৪ সালের আইন দ্বারা সেনানিবাস ক্যান্টনমেন্ট বোর্ড পরিচালিত হয়ে আসছে। দীর্ঘ ৯০ বছর পর আইনটি হালনাগাদ করা হচ্ছে। আইনের ৪৩টি ধারা সংশোধন করে সাজার মেয়াদ বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে।

শফিউল আলম জানান, ক্যান্টনমেন্ট বোর্ডের অধীন এলাকায় ট্রাফিক আইন ভাঙলে আগে ৫০ টাকা জরিমানা হতো। সংশোধনীতে তা বাড়িয়ে দুই থেকে পাঁচ হাজার টাকা করা হয়েছে। এ ছাড়া ওই এলাকায় স্থাপনা নির্মাণকাজে বিলম্ব করলে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করার প্রস্তাব করা হয়েছে।

এ ছাড়া কেউ যদি খোলা মাংস বহন করে, তবে শাস্তি হিসেবে তাঁর ২০ হাজার টাকা অর্থদণ্ডের কথা বলা হয়েছে বলে জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব।

শফিউল আলম আরো জানান, আগের আইন অনুযায়ী সেনানিবাস এলাকায় কেউ আতশবাজি করলে ৫০ টাকা জরিমানা করা হতো। বর্তমানে তা তিন হাজার টাকা করার প্রস্তাব করা হয়েছে।

আইনে কারাভোগের মতো কোনো দণ্ড আছে কি-না এমন প্রশ্নের উত্তরে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, সব ধারায় অর্থদণ্ডের কথা বলা আছে। তবে কেউ যদি অর্থদণ্ড পরিশোধে ব্যর্থ হয়, তবে ক্যান্টনমেন্ট বোর্ড সে ক্ষেত্রে অন্য যেকোনো শাস্তির ব্যবস্থা করতে পারে।

আইনটি প্রচলিত আইনের সঙ্গে সাংঘর্ষিক কি-না জানতে চাইলে শফিউল আলম বলেন, প্রচলিত কোনো আইনের সঙ্গে এটি সাংঘর্ষিক নয়। কেননা, প্রতিটি পৌরসভার এ ধরনের একটি আইন আছে। সেখানেও এ ধরনের অনেক ধারা থাকে। তা ছাড়া পুলিশ আইনেও এ ধরনের বিধানের কথা বলা আছে। মাতলামি করার শাস্তি পুলিশ আইনেও বলা আছে।

সচিব জানান, আজকের বৈঠকে বাংলাদেশ ও সানমেরিনোর সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনের লক্ষ্যে একটি চুক্তির খসড়া অনুমোদন করা হয়েছে।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X