বৃহস্পতিবার, ২২শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১০ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সকাল ৭:০২
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Sunday, November 13, 2016 3:36 pm
A- A A+ Print

সোমবার সারা দেশে বিক্ষোভ করবে বিএনপি

160987_1

৭ নভেম্বর ‘জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস’ উপলক্ষে সমাবেশ করতে না দেওয়ার প্রতিবাদে সোমবার সারা দেশে বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বিএনপি। ঢাকাসহ মহানগরগুলোর থানায় থানায়, জেলা-উপজেলা সদরে এ কর্মসূচি পালন করা হবে। আজ রবিবার দুপুরে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন। সংবাদ সম্মেলনে মির্জা ফখরুল বলেন, সমাবেশের অনুমতি না দিয়ে সরকার গণতন্ত্র লঙ্ঘন করেছে। দেশের মানুষকে বোকা বানানাে হচ্ছে। বিরোধী দলের সাংবিধানিক মৌলিক অধিকার মত প্রকাশের স্বাধীনতা সম্পূর্ণভাবে নিঃশেষ করে দেয়া হয়েছে। ডিএমপি থেকে ৮ নভেম্বর সভা করার যে অনুমতি দেওয়া হয়েছিল তা নোংরা রশিসিকতা আর কিছু নয় উল্রেখ করে মির্জা ফখরুল বলেন, সরকার যে অগণতান্ত্রিক এবং মেরুদন্ডহীন তা তারা আবারো প্রমাণ করলো। মির্জা ফখরুল অভিযোগ করে বলেন, আইনের মধ্য থেকেও বিএনপিকে সমাবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে না। এতে করে বিএনপির সাংবিধানিক মৌলিক অধিকার হরণ করছে সরকার।সরকার যে করেই হোক ক্ষমতায় টিকে থাকতে চায়। গণতন্ত্রকে অনেক আগেই তারা হত্যা করেছে এবং যা চলছে তা মিলাদ মাহফিল বা কুলখানি। সরকারের সময় শেষ হওয়ার পূর্বেই আশা করছি তাদের শুভ বুদ্ধির উদয় হবে, আশা প্রকাশ করেন মির্জা ফখরুল। সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ ও বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আব্দুস সালাম সহ দলীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন। ‘জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস’ উপলক্ষে গত ৭ অথবা ৮ নভেম্বর রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের অনুমতি চেয়েছিল বিএনপি। কিন্তু ৭ বা ৮ নভেম্বর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করতে দেওয়া হবে না বলে জানায় ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি)। এ পরিপ্রেক্ষিতে ৮ নভেম্বর নয়াপল্টনে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশ করার অনুমতি চায় বিএনপি। কিন্তু ৮ নভেম্বর পুলিশ বিএনপিকে ২৭ শর্ত সাপেক্ষে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে আলোচনা সভা করার অনুমতি দেয়। কিন্তু তা প্রত্যাখ্যান করে বিএনপি। এরপর ১৩ নভেম্বর নয়াপল্টনে নতুন করে সমাবেশের অনুমতি চায় বিএনপি। কিন্তু তারও অনুমতি পায়নি দলটি।
 

Comments

Comments!

 সোমবার সারা দেশে বিক্ষোভ করবে বিএনপিAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

সোমবার সারা দেশে বিক্ষোভ করবে বিএনপি

Sunday, November 13, 2016 3:36 pm
160987_1

৭ নভেম্বর ‘জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস’ উপলক্ষে সমাবেশ করতে না দেওয়ার প্রতিবাদে সোমবার সারা দেশে বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বিএনপি।

ঢাকাসহ মহানগরগুলোর থানায় থানায়, জেলা-উপজেলা সদরে এ কর্মসূচি পালন করা হবে। আজ রবিবার দুপুরে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

সংবাদ সম্মেলনে মির্জা ফখরুল বলেন, সমাবেশের অনুমতি না দিয়ে সরকার গণতন্ত্র লঙ্ঘন করেছে। দেশের মানুষকে বোকা বানানাে হচ্ছে। বিরোধী দলের সাংবিধানিক মৌলিক অধিকার মত প্রকাশের স্বাধীনতা সম্পূর্ণভাবে নিঃশেষ করে দেয়া হয়েছে।

ডিএমপি থেকে ৮ নভেম্বর সভা করার যে অনুমতি দেওয়া হয়েছিল তা নোংরা রশিসিকতা আর কিছু নয় উল্রেখ করে মির্জা ফখরুল বলেন, সরকার যে অগণতান্ত্রিক এবং মেরুদন্ডহীন তা তারা আবারো প্রমাণ করলো।

মির্জা ফখরুল অভিযোগ করে বলেন, আইনের মধ্য থেকেও বিএনপিকে সমাবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে না। এতে করে বিএনপির সাংবিধানিক মৌলিক অধিকার হরণ করছে সরকার।সরকার যে করেই হোক ক্ষমতায় টিকে থাকতে চায়। গণতন্ত্রকে অনেক আগেই তারা হত্যা করেছে এবং যা চলছে তা মিলাদ মাহফিল বা কুলখানি।

সরকারের সময় শেষ হওয়ার পূর্বেই আশা করছি তাদের শুভ বুদ্ধির উদয় হবে, আশা প্রকাশ করেন মির্জা ফখরুল।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ ও বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আব্দুস সালাম সহ দলীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

‘জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস’ উপলক্ষে গত ৭ অথবা ৮ নভেম্বর রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের অনুমতি চেয়েছিল বিএনপি। কিন্তু ৭ বা ৮ নভেম্বর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করতে দেওয়া হবে না বলে জানায় ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি)।

এ পরিপ্রেক্ষিতে ৮ নভেম্বর নয়াপল্টনে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশ করার অনুমতি চায় বিএনপি। কিন্তু ৮ নভেম্বর পুলিশ বিএনপিকে ২৭ শর্ত সাপেক্ষে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে আলোচনা সভা করার অনুমতি দেয়। কিন্তু তা প্রত্যাখ্যান করে বিএনপি। এরপর ১৩ নভেম্বর নয়াপল্টনে নতুন করে সমাবেশের অনুমতি চায় বিএনপি। কিন্তু তারও অনুমতি পায়নি দলটি।

 

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X