বুধবার, ২১শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৯ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ১১:০১
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Saturday, July 30, 2016 8:06 pm
A- A A+ Print

স্ত্রীর মৃত্যুর খবর শুনে কারাগারেই স্বামীর আত্মহত্যা

148572_1

   
নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জ জেলা কারাগারে স্ত্রীর মৃত্যুর খবর শুনে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন নির্যাতনকারী স্বামী ইমরান হোসেন। শনিবার সকাল ১১টায় কারাগারের টয়লেটের ভেতর গলায় গামছা পেঁচিয়ে তিনি আত্মহত্যা করেন।   নারায়ণগঞ্জ জেলা কারাগারের জেল সুপার হালিমা খাতুন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
  ইমরান সিদ্ধিরগঞ্জের শিমুলপাড়া বিহারী কলোনীর আব্দুর রহিমের ছেলে। স্ত্রীকে নির্যাতনের দায়ে তিনি হাজতি হিসেবে কারাগারে ছিলেন।   কারাগারের জেলার আসাদুজ্জামান জানান, ইমরান হোসেন শনিবার সকালে অসুস্থ বোধ করেন। পরে তাকে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে তার তেমন কোনো শারীরিক সমস্যা না পাওয়ায় ফের তাকে জেলখানায় নিয়ে আসা হয়।   এরপর মাঠে হাজতি গণনার সময় লাইনে দাঁড়িয়ে থাকা অবস্থায় অনুমতি নিয়ে টয়লেটে যান ইমরান। দীর্ঘ সময় টয়লেট থেকে বের না হওয়ায় অন্যান্য হাজতিরা দরজা ধাক্কাধাক্কি করেন। ভেতর থেকে কোনো সাড়া না পেয়ে তারা বিষয়টি অফিসে জানায়।   পরে অফিস থেকে লোক গিয়ে দরজা ভেঙ্গে তাকে গলায় গামছা বাঁধা ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পায়। পরে তাকে উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।   অন্য একটি সূত্র জানায়, শনিবার সকালে পরিবারের পক্ষ থেকে লিপির মৃত্যুর সংবাদ ইমরানকে জানানো হয়। এরপর থেকেই তিনি অস্বাভাবিক আচরণ করছিলেন।   ফতুল্লা মডেল থানার এসআই  সাইফুর রহমান জানান, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট লাশের সুরতহাল করেছেন। প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া শেষে পরিবারের কাছে লাশ হস্থান্তর করা হবে।   একাধিক সূত্রে জানা যায়, ইমরান সাত বছর আগে একই এলাকার ইকবাল হোসেনের মেয়ে লিপিকে বিয়ে করেন। বিয়ের পর তাদের দুইটি কন্যা সন্তান হয়।   এরই মধ্যে ইমরান নেশাগ্রস্ত হয়ে পড়েন। এতে পারিবারিক অশান্তি বেড়ে যাওয়ায় ইমরানকে দুই মাস আগে তালাক দেয় লিপি। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ২২ জুলাই ভোরে ঘমুন্ত অবস্থায় শিলপাটা দিয়ে লিপির মাথায় ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে মারাত্মক জখম করে পালিয়ে যায় ইমরান।   পরে লিপিকে দ্রুত শহরের ৩০০ শয্যা হাসপাতালে নেয়া হয়। অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। এ ঘটনায় লিপির বাবা ইকবাল হোসেন বাদী হয়ে ইমরানের বিরুদ্ধে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করলে পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে।   এদিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ২৫ জুলাই লিপির মৃত্যু হয়। এই খবর তাকে জানানো হলে তিনি তা সইতে না পেরে আত্মহত্যা করেছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।
 

Comments

Comments!

 স্ত্রীর মৃত্যুর খবর শুনে কারাগারেই স্বামীর আত্মহত্যাAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

স্ত্রীর মৃত্যুর খবর শুনে কারাগারেই স্বামীর আত্মহত্যা

Saturday, July 30, 2016 8:06 pm
148572_1

 

 

নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জ জেলা কারাগারে স্ত্রীর মৃত্যুর খবর শুনে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন নির্যাতনকারী স্বামী ইমরান হোসেন।

শনিবার সকাল ১১টায় কারাগারের টয়লেটের ভেতর গলায় গামছা পেঁচিয়ে তিনি আত্মহত্যা করেন।

 

নারায়ণগঞ্জ জেলা কারাগারের জেল সুপার হালিমা খাতুন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

 

ইমরান সিদ্ধিরগঞ্জের শিমুলপাড়া বিহারী কলোনীর আব্দুর রহিমের ছেলে। স্ত্রীকে নির্যাতনের দায়ে তিনি হাজতি হিসেবে কারাগারে ছিলেন।

 

কারাগারের জেলার আসাদুজ্জামান জানান, ইমরান হোসেন শনিবার সকালে অসুস্থ বোধ করেন। পরে তাকে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে তার তেমন কোনো শারীরিক সমস্যা না পাওয়ায় ফের তাকে জেলখানায় নিয়ে আসা হয়।

 

এরপর মাঠে হাজতি গণনার সময় লাইনে দাঁড়িয়ে থাকা অবস্থায় অনুমতি নিয়ে টয়লেটে যান ইমরান। দীর্ঘ সময় টয়লেট থেকে বের না হওয়ায় অন্যান্য হাজতিরা দরজা ধাক্কাধাক্কি করেন। ভেতর থেকে কোনো সাড়া না পেয়ে তারা বিষয়টি অফিসে জানায়।

 

পরে অফিস থেকে লোক গিয়ে দরজা ভেঙ্গে তাকে গলায় গামছা বাঁধা ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পায়। পরে তাকে উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

 

অন্য একটি সূত্র জানায়, শনিবার সকালে পরিবারের পক্ষ থেকে লিপির মৃত্যুর সংবাদ ইমরানকে জানানো হয়। এরপর থেকেই তিনি অস্বাভাবিক আচরণ করছিলেন।

 

ফতুল্লা মডেল থানার এসআই  সাইফুর রহমান জানান, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট লাশের সুরতহাল করেছেন। প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া শেষে পরিবারের কাছে লাশ হস্থান্তর করা হবে।

 

একাধিক সূত্রে জানা যায়, ইমরান সাত বছর আগে একই এলাকার ইকবাল হোসেনের মেয়ে লিপিকে বিয়ে করেন। বিয়ের পর তাদের দুইটি কন্যা সন্তান হয়।

 

এরই মধ্যে ইমরান নেশাগ্রস্ত হয়ে পড়েন। এতে পারিবারিক অশান্তি বেড়ে যাওয়ায় ইমরানকে দুই মাস আগে তালাক দেয় লিপি। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ২২ জুলাই ভোরে ঘমুন্ত অবস্থায় শিলপাটা দিয়ে লিপির মাথায় ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে মারাত্মক জখম করে পালিয়ে যায় ইমরান।

 

পরে লিপিকে দ্রুত শহরের ৩০০ শয্যা হাসপাতালে নেয়া হয়। অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

এ ঘটনায় লিপির বাবা ইকবাল হোসেন বাদী হয়ে ইমরানের বিরুদ্ধে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করলে পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে।

 

এদিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ২৫ জুলাই লিপির মৃত্যু হয়। এই খবর তাকে জানানো হলে তিনি তা সইতে না পেরে আত্মহত্যা করেছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

 

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X