শুক্রবার, ২৩শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১১ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সকাল ৬:২৪
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Wednesday, December 7, 2016 8:51 pm
A- A A+ Print

হত্যা মামলার ‘পলাতক’ আসামিকে নিয়ে গ্যালারিতে এমপি আয়েন

48

রাজশাহীর পবা উপজেলার নওহাটা পৌরসভার ২নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিল আজিজুল হক। পৌরসভার প্যানেল মেয়রও তিনি। আর রাজনৈতিকভাবে নওহাটা পৌর শাখা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক।
তবে হত্যা মামলার প্রধান আসামি হওয়ায় দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় তার আর দেখা মেলে না। পুলিশও বলছে, পলাতক। হত্যাকাণ্ডের পর থেকেই তাকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। তবে হত্যা মামলার প্রধান আসামি ‘পলাতক’ আজিজুল হককে এবার পাওয়া গেছে স্থানীয় এমপি আয়েন উদ্দিনের সঙ্গী হিসেবে। মঙ্গলবার ঢাকার মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে বিপিএলে রাজশাহী-চট্টগ্রামের মধ্যকার খেলা চলাকালে এমপি আয়েনের সঙ্গে ছিলেন তিনি। এমপির সঙ্গে স্টেডিয়ামের ভিআইপি গ্যালারিতে বসা ও খেলা উপভোগের একাধিক ছবি আজিজুল নিজেই তার ফেসবুকে আপলোড করেছেন। আজিজুলের এই ছবিগুলোর মধ্যে কয়েকটি সেলফিতে আয়েন উদ্দিনকে বেশ হাসিমুখেই দেখা গেছে। পবা থানা পুলিশের এসআই ও সংশ্লিষ্ট মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা আরিফ হোসেন বুধবার যুগান্তরকে জানান, পৌরসভার সাবেক মেয়র মনসুর আহমেদের সমর্থক ছিলেন পিল্লাপাড়া গ্রামের অটোরিকশা চালক আব্দুল মান্নান। গত ১জুলাই তাকে পিটিয়ে হত্যা করে পৌরসভা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ও স্থানীয় কাউন্সিল আজিজুলের সমর্থকরা। এ সময় ঘটনাস্থলে আজিজুল উপস্থিত ছিলেন। এঘটনায় দায়ের করা মামলায় ১৯ জনকে আসামি করা হয়েছে। এরমধ্যে প্রধান আসামি হলেন যুবলীগ নেতা আজিজুল হক। কিন্তু ঘটনার পর থেকেই তিনি পলাতক থাকায় খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না বলে দাবি করে এই পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, উনার আসল বাড়ি নোয়াখালী। এখন উনি নোয়াখালীতে নাকি ঢাকায় লুকিয়ে আছে তা জানি না। বাকি আসামিদের মধ্যে ৯ জন হাইকোর্ট থেকে জামিনে আছেন। আর ৫-৬জন জেলহাজতে। কিন্তু যুবলীগ নেতা আজিজুল এখনো গ্রেফতার হননি বা জামিনও নেন নি। তবে নাগালের মধ্যে পেলে তাকে গ্রেফতার করা হবে বলেও তিনি জানান। এদিকে, মঙ্গলবার রাজশাহী কিংস্ ও চিটাগাং ভাইকিংসের খেলা দেখতে মিরপুর শের-ই বাংলা স্টেডিয়ামে হাজির ছিলেন রাজশাহী-৩ (পবা-মোহনপুর) আসনের সরকার দলীয় সংসদ সদস্য আয়েন উদ্দিন। এসময় তার সাথে সার্বক্ষণিক সঙ্গী হিসেবে ছিলেন  যুবলীগ নেতা আজিজুল হক। আজিজুলের ফেইসবুকের টাইমলাইনে দেখা যায়, তিনি মঙ্গলবার বিকেল ৩টা ৩৬মিনিটে একটি ছবি পোস্ট করেছেন। ছবিতে দেখা যাচ্ছে, এমপি আয়েন স্টেডিয়ামের ভিআইপি গ্যালারির চেয়ারে বসে মোবাইল ফোনে কথা বলছেন। তার ঠিক ডানপাশে ‘পলাতক’ থাকা আজিজুল সেলফি তোলায় মশগুল। ফেইসবুকে দেয়া এই ছবির ওপরে আজিজুল লিখেছেন, ‘মিরপুর শেরেবাংলা ষ্টেডিয়ামে রাজশাহী কিং বনাম চিটাগাং ভাইকিংস এর খেলা দেখছি ভিআইপি গ্যালারিতে আমরা (০৬.১২.২০১৬)’। একইদিন বিকেল ৩টা ৫৭মিনিটে আরেকটি ছবি তিনি পোস্ট করেছেন। এই ছবিতেও এমপি আয়েনের বামপাশে দাঁড়িয়ে আজিজুল নিজেই ছবি তুলেছেন। তার সঙ্গে ঘনিষ্ঠভাবে এমপি আয়েনকে হাস্যোজ্জ্বল দেখাচ্ছে। ওই ছবিতে অজ্ঞাত আরো দুইব্যক্তি দাঁড়িয়ে রয়েছেন। এছাড়া গত ৩ ডিসেম্বর আজিজুল হক তার ফেইসবুকে আরেক ছবি পোস্ট করেছেন। এই ছবিতেও দেখা যাচ্ছে, স্টেডিয়ামের গ্যালারিতে ঘনিষ্ঠভাবে এমপি আয়েনের সঙ্গে বসে খেলা উপভোগ করছেন তিনি। গেল ২০ নভেম্বর বেলা ১১টা ২০মিনিটে ফেইসবুকে নিজের একটি ছবি পোস্ট করে আজিজুল লিখেছেন, ‘মানুষ মানুষের জন্য কিন্তু আমার জন্য কে...?’ তার এই পোস্টের প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের অনেক নেতাকর্মী। এবিষয়ে জানতে এমপি আয়েন উদ্দিনের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তার ব্যবহৃত একাধিক মোবাইল ফোন নাম্বারই বন্ধ পাওয়া গেছে।  তবে তার ব্যক্তিগত সহকারী ইকবাল আহমেদ বলেন, ‘এমপি স্যার এখন সংসদ অধিবেশনে আছেন’। এদিকে নওহাটা পৌরসভার মেয়র মকবুল হোসেন জানান, হত্যা মামলার আসামী হওয়ার পর থেকে কাউন্সিলর আজিজুল পৌরসভায় আসেন না। গত চার মাসিক সভাতেও তিনি হাজির ছিলেন না। তবে গোপনে এসে রেজ্যুলেশনে সই করে যাচ্ছেন।  কিন্তু আমার সঙ্গে কখনো দেখা হয় নি তার। এবিষয়ে নওহাটা যুবলীগের সভাপতি হাফিজুর রহমান বলেন, মামলার কারণে আজিজুল এখন ঢাকায় আছে। তবে মামলাটি মীমাংসা করার জন্য ২-৩বার বসা হয়েছিল। এখনো সমাধান হয়নি। তবে মীমাংসার চেষ্টা চলছে।

Comments

Comments!

 হত্যা মামলার ‘পলাতক’ আসামিকে নিয়ে গ্যালারিতে এমপি আয়েনAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

হত্যা মামলার ‘পলাতক’ আসামিকে নিয়ে গ্যালারিতে এমপি আয়েন

Wednesday, December 7, 2016 8:51 pm
48

রাজশাহীর পবা উপজেলার নওহাটা পৌরসভার ২নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিল আজিজুল হক। পৌরসভার প্যানেল মেয়রও তিনি। আর রাজনৈতিকভাবে নওহাটা পৌর শাখা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক।

তবে হত্যা মামলার প্রধান আসামি হওয়ায় দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় তার আর দেখা মেলে না।

পুলিশও বলছে, পলাতক। হত্যাকাণ্ডের পর থেকেই তাকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। তবে হত্যা মামলার প্রধান আসামি ‘পলাতক’ আজিজুল হককে এবার পাওয়া গেছে স্থানীয় এমপি আয়েন উদ্দিনের সঙ্গী হিসেবে।

মঙ্গলবার ঢাকার মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে বিপিএলে রাজশাহী-চট্টগ্রামের মধ্যকার খেলা চলাকালে এমপি আয়েনের সঙ্গে ছিলেন তিনি। এমপির সঙ্গে স্টেডিয়ামের ভিআইপি গ্যালারিতে বসা ও খেলা উপভোগের একাধিক ছবি আজিজুল নিজেই তার ফেসবুকে আপলোড করেছেন।

আজিজুলের এই ছবিগুলোর মধ্যে কয়েকটি সেলফিতে আয়েন উদ্দিনকে বেশ হাসিমুখেই দেখা গেছে।

পবা থানা পুলিশের এসআই ও সংশ্লিষ্ট মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা আরিফ হোসেন বুধবার যুগান্তরকে জানান, পৌরসভার সাবেক মেয়র মনসুর আহমেদের সমর্থক ছিলেন পিল্লাপাড়া গ্রামের অটোরিকশা চালক আব্দুল মান্নান।

গত ১জুলাই তাকে পিটিয়ে হত্যা করে পৌরসভা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ও স্থানীয় কাউন্সিল আজিজুলের সমর্থকরা। এ সময় ঘটনাস্থলে আজিজুল উপস্থিত ছিলেন। এঘটনায় দায়ের করা মামলায় ১৯ জনকে আসামি করা হয়েছে। এরমধ্যে প্রধান আসামি হলেন যুবলীগ নেতা আজিজুল হক।

কিন্তু ঘটনার পর থেকেই তিনি পলাতক থাকায় খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না বলে দাবি করে এই পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, উনার আসল বাড়ি নোয়াখালী। এখন উনি নোয়াখালীতে নাকি ঢাকায় লুকিয়ে আছে তা জানি না।

বাকি আসামিদের মধ্যে ৯ জন হাইকোর্ট থেকে জামিনে আছেন। আর ৫-৬জন জেলহাজতে। কিন্তু যুবলীগ নেতা আজিজুল এখনো গ্রেফতার হননি বা জামিনও নেন নি। তবে নাগালের মধ্যে পেলে তাকে গ্রেফতার করা হবে বলেও তিনি জানান।

এদিকে, মঙ্গলবার রাজশাহী কিংস্ ও চিটাগাং ভাইকিংসের খেলা দেখতে মিরপুর শের-ই বাংলা স্টেডিয়ামে হাজির ছিলেন রাজশাহী-৩ (পবা-মোহনপুর) আসনের সরকার দলীয় সংসদ সদস্য আয়েন উদ্দিন। এসময় তার সাথে সার্বক্ষণিক সঙ্গী হিসেবে ছিলেন  যুবলীগ নেতা আজিজুল হক।

আজিজুলের ফেইসবুকের টাইমলাইনে দেখা যায়, তিনি মঙ্গলবার বিকেল ৩টা ৩৬মিনিটে একটি ছবি পোস্ট করেছেন। ছবিতে দেখা যাচ্ছে, এমপি আয়েন স্টেডিয়ামের ভিআইপি গ্যালারির চেয়ারে বসে মোবাইল ফোনে কথা বলছেন।

তার ঠিক ডানপাশে ‘পলাতক’ থাকা আজিজুল সেলফি তোলায় মশগুল। ফেইসবুকে দেয়া এই ছবির ওপরে আজিজুল লিখেছেন, ‘মিরপুর শেরেবাংলা ষ্টেডিয়ামে রাজশাহী কিং বনাম চিটাগাং ভাইকিংস এর খেলা দেখছি ভিআইপি গ্যালারিতে আমরা (০৬.১২.২০১৬)’।

একইদিন বিকেল ৩টা ৫৭মিনিটে আরেকটি ছবি তিনি পোস্ট করেছেন। এই ছবিতেও এমপি আয়েনের বামপাশে দাঁড়িয়ে আজিজুল নিজেই ছবি তুলেছেন। তার সঙ্গে ঘনিষ্ঠভাবে এমপি আয়েনকে হাস্যোজ্জ্বল দেখাচ্ছে।

ওই ছবিতে অজ্ঞাত আরো দুইব্যক্তি দাঁড়িয়ে রয়েছেন। এছাড়া গত ৩ ডিসেম্বর আজিজুল হক তার ফেইসবুকে আরেক ছবি পোস্ট করেছেন। এই ছবিতেও দেখা যাচ্ছে, স্টেডিয়ামের গ্যালারিতে ঘনিষ্ঠভাবে এমপি আয়েনের সঙ্গে বসে খেলা উপভোগ করছেন তিনি।

গেল ২০ নভেম্বর বেলা ১১টা ২০মিনিটে ফেইসবুকে নিজের একটি ছবি পোস্ট করে আজিজুল লিখেছেন, ‘মানুষ মানুষের জন্য কিন্তু আমার জন্য কে…?’ তার এই পোস্টের প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের অনেক নেতাকর্মী।

এবিষয়ে জানতে এমপি আয়েন উদ্দিনের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তার ব্যবহৃত একাধিক মোবাইল ফোন নাম্বারই বন্ধ পাওয়া গেছে।  তবে তার ব্যক্তিগত সহকারী ইকবাল আহমেদ বলেন, ‘এমপি স্যার এখন সংসদ অধিবেশনে আছেন’।

এদিকে নওহাটা পৌরসভার মেয়র মকবুল হোসেন জানান, হত্যা মামলার আসামী হওয়ার পর থেকে কাউন্সিলর আজিজুল পৌরসভায় আসেন না। গত চার মাসিক সভাতেও তিনি হাজির ছিলেন না। তবে গোপনে এসে রেজ্যুলেশনে সই করে যাচ্ছেন।  কিন্তু আমার সঙ্গে কখনো দেখা হয় নি তার।

এবিষয়ে নওহাটা যুবলীগের সভাপতি হাফিজুর রহমান বলেন, মামলার কারণে আজিজুল এখন ঢাকায় আছে। তবে মামলাটি মীমাংসা করার জন্য ২-৩বার বসা হয়েছিল। এখনো সমাধান হয়নি। তবে মীমাংসার চেষ্টা চলছে।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X