শনিবার, ২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১২ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ৯:৫৯
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Thursday, December 15, 2016 7:32 pm
A- A A+ Print

হামাসের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে গাজায় যোদ্ধা-জওয়ানদের শোডাউন

27

ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী দল হামাসের ২৯ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে গাজা নগরীতে ব্যাপক শোডাউন দিয়েছেন হাজার হাজার ফিলিস্তিনী ও মুখোশ পরা সশস্ত্র যোদ্ধারা।
বুধবার এ উপলক্ষে গাজার রাস্তায় উৎসবমুখর পরিবেশ তৈরি হয়। শতশত যোদ্ধা অস্ত্র উঁচিয়ে এবং শিশুরা খেলনা বন্দুক নিয়ে শোভাযাত্রায় অংশ নেন। ফিলিস্তিনের স্বাধীনতার পক্ষে স্লোগান দেন নারী ও শিশুসহ গাজাবাসী। হামাসের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর এই  শোভাযাত্রা কার্যত দখলদার ইসরাইল বিরোধী গণমিছিলে পরিণত হয়। এতে ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসের দল ফাতাহ পার্টির প্রতি জাতীয় ঐক্যের ডাক দেন হামাস নেতা খালিদ আল হাইয়া। উল্লেখ্য, ১৯৮৭ সালে ফিলিস্তিনের স্বাধীনতা আন্দোলনের দুই নেতা শেখ আহমদ ইয়াসিন এবং মাহমুদ জাহারের নেতৃত্বে ফিলিস্তিনের নতুন স্বাধীনতাকামী দল হিসেবে যাত্রা শুরু করে 'হারকাত আল-মুকাওয়ামা আল-ইসলামিয়া' তথা হামাস। দলটির 'ইজ্জাদ্দ্বীন আল কাসসাম ব্রিগেড' নামে একটি সামরিক শাখা রয়েছে। ২০০৬ সালে ফিলিস্তিনের জাতীয় পরিষদের নির্বাচনে বিজয়ী হয় হামাস। তবে ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসের সঙ্গে বিরোধের জেরে ২০০৭ দখলমুক্ত দুই ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড পশ্চিম তীর ও গাজার শাসনে বিভক্তি আসে। পশ্চিম তীর ফাতাহর এবং গাজা হামাসের দখলে চলে যায়। একই বছর থেকে গাজাকে অবরুদ্ধ করে ফেলে ইসরাইল। সর্বশেষ ২০১৪ সালে গাজায় ইসরাইল হামলা চালায়। এ সময় ৫০ দিন ধরে প্রতিরোধ যুদ্ধ করে হামাস। ওই হামলায় দুই হাজার ২৫১ ফিলিস্তিনি নিহত এবং আরও কয়েক হাজার আহত হয়েছিল। এছাড়া ১২ হাজার ফিলিস্তিনী বাড়ি ধ্বংস এবং এক লাখ ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

Comments

Comments!

 হামাসের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে গাজায় যোদ্ধা-জওয়ানদের শোডাউনAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

হামাসের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে গাজায় যোদ্ধা-জওয়ানদের শোডাউন

Thursday, December 15, 2016 7:32 pm
27
ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী দল হামাসের ২৯ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে গাজা নগরীতে ব্যাপক শোডাউন দিয়েছেন হাজার হাজার ফিলিস্তিনী ও মুখোশ পরা সশস্ত্র যোদ্ধারা।

বুধবার এ উপলক্ষে গাজার রাস্তায় উৎসবমুখর পরিবেশ তৈরি হয়। শতশত যোদ্ধা অস্ত্র উঁচিয়ে এবং শিশুরা খেলনা বন্দুক নিয়ে শোভাযাত্রায় অংশ নেন। ফিলিস্তিনের স্বাধীনতার পক্ষে স্লোগান দেন নারী ও শিশুসহ গাজাবাসী।

হামাসের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর এই  শোভাযাত্রা কার্যত দখলদার ইসরাইল বিরোধী গণমিছিলে পরিণত হয়। এতে ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসের দল ফাতাহ পার্টির প্রতি জাতীয় ঐক্যের ডাক দেন হামাস নেতা খালিদ আল হাইয়া।

উল্লেখ্য, ১৯৮৭ সালে ফিলিস্তিনের স্বাধীনতা আন্দোলনের দুই নেতা শেখ আহমদ ইয়াসিন এবং মাহমুদ জাহারের নেতৃত্বে ফিলিস্তিনের নতুন স্বাধীনতাকামী দল হিসেবে যাত্রা শুরু করে ‘হারকাত আল-মুকাওয়ামা আল-ইসলামিয়া’ তথা হামাস। দলটির ‘ইজ্জাদ্দ্বীন আল কাসসাম ব্রিগেড’ নামে একটি সামরিক শাখা রয়েছে।

২০০৬ সালে ফিলিস্তিনের জাতীয় পরিষদের নির্বাচনে বিজয়ী হয় হামাস। তবে ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসের সঙ্গে বিরোধের জেরে ২০০৭ দখলমুক্ত দুই ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড পশ্চিম তীর ও গাজার শাসনে বিভক্তি আসে। পশ্চিম তীর ফাতাহর এবং গাজা হামাসের দখলে চলে যায়। একই বছর থেকে গাজাকে অবরুদ্ধ করে ফেলে ইসরাইল।

সর্বশেষ ২০১৪ সালে গাজায় ইসরাইল হামলা চালায়। এ সময় ৫০ দিন ধরে প্রতিরোধ যুদ্ধ করে হামাস।

ওই হামলায় দুই হাজার ২৫১ ফিলিস্তিনি নিহত এবং আরও কয়েক হাজার আহত হয়েছিল। এছাড়া ১২ হাজার ফিলিস্তিনী বাড়ি ধ্বংস এবং এক লাখ ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X