শনিবার, ২১শে অক্টোবর, ২০১৭ ইং, ৬ই কার্তিক, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, বিকাল ৪:১৮
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Saturday, August 12, 2017 8:11 pm
A- A A+ Print

হিজাব খুলতে বাধ্য করায় মুসলিম নারীকে ৮৫,০০০ ডলার ক্ষতিপূরণের নির্দেশ

179847_1

ক্যালিফোর্নিয়া: ক্যালিফোর্নিয়ার লং বিচ শহরের এক মুসলিম নারীর দায়ের করা ক্ষতিপূরণ মামলায় তাকে ৮৫,০০০ মার্কিন ডলার প্রদান করার জন্য নির্দেশ দিয়েছে দেশটির একটি আদালত। পুলিশ হেফাজতে থাকার সময় একজন পুলিশ অফিসার ওই নারীকে জোরপূর্বক তার হিজাব খুলতে বাধ্য করার জন্য ২০১৬ সালে তিনি মামলাটি দায়ের করেছিল। মামলার বিবরণ অনুযায়ী, ‘লো রাইডার’ গাড়ি চালানোর জন্য পুলিশ ক্রিস্টি পাওয়েল ও তার স্বামীকে আটক করে।পরে পাওয়েলের নামে ওয়ারেন্ট জারি হলে পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার দেখায়। পাওয়েলকে একজন নারী পুলিশ অফিসারের কাছে হস্তান্তর করার জন্য তার স্বামী অনুরোধ জানান। কিন্তু তার এই অনুরোধ প্রত্যাখ্যান করা হয় এবং পাওয়েলকে জানানো হয় যে তাকে তার হিজাব অপসারণ করতে হবে। পাওয়েল তার হিজাব ছাড়াই কারাগারে রাত কাটান। পরে তার স্বামী তার জামিননামা দাখিল করার পর তাকে তার হিজাব ফিরিয়ে দেয়া হয়। এই মামলার রায়ে বলা হয়, পাওয়েলকে তার ধর্মীয় পোশাক হিজাব ছাড়াই জনস্মুখে হাজির হতে বাধ্য করা হয়েছিল। এতে আরো বলা হয়, ‘অবাধ ধর্ম চর্চা থেকে বঞ্চনার ফলে ক্রিস্টি পাওয়েল গুরুতর অস্বস্তি, অপমান এবং মানসিক যন্ত্রণা ভোগ করেছেন।’ ২০১৬ সালের এপ্রিলে পাওয়েল মামলাটি দায়ের করেন। তিনি এতে অভিযোগ করেন যে, পুলিশ বিভাগ তার প্রথম সংশোধনী অধিকারকে লঙ্ঘন করেছে। প্রথম সংশোধনী অধিকার হচ্ছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সংবিধানের একটি সংশোধনী। এতে অবাধ মত প্রকাশের অধিকারের নিশ্চয়তা দেয়া হয়েছে। এই অধিকারের মধ্য সমাবেশের স্বাধীনতা, সংবাদপত্রের স্বাধীনতা, ধর্মীয় স্বাধীনতা এবং বাক স্বাধীনতা অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে আমেরিকান-ইসলামিক রিলেশনস নেভিগেশন কাউন্সিল এই মামলায় জয়ী হওয়ার জন্য পাওয়েলের প্রশংসা করেছে। এতে বলা হয়, ‘ধর্মীয় স্বাধীনতার অধিকার রক্ষার জন্য ক্রিস্টি পাওয়েলের সংগ্রামের জন্য আমরা তার প্রশংসা করছি।’ পাওয়েল আমেরিকা-ইসলামিক রিলেশন্স কাউন্সিলকে জানান, তিনি এই বাজে অভিজ্ঞতার সবশেষ মুসলিম নারী হতে চেয়েছিলেন। তার মতো আর কোনো মুসলিম নারী যেন এ রকম অভিজ্ঞার শিকার না হয় সেজন্যই তিনি আইনের আশ্রয় নেন বলে জানান। তিনি বলেন, ‘আমি চাই যে আমার মুসলিম বোনেরা হিজাব পরিধানের মাধ্যমে সবসময় আরাম এবং নিরাপদ বোধ করুক এবং এই অধিকার আদায়ে তারা মাথা তুলে দাঁড়াক।’ সূত্র: সিএনএন

Comments

Comments!

 হিজাব খুলতে বাধ্য করায় মুসলিম নারীকে ৮৫,০০০ ডলার ক্ষতিপূরণের নির্দেশAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

হিজাব খুলতে বাধ্য করায় মুসলিম নারীকে ৮৫,০০০ ডলার ক্ষতিপূরণের নির্দেশ

Saturday, August 12, 2017 8:11 pm
179847_1

ক্যালিফোর্নিয়া: ক্যালিফোর্নিয়ার লং বিচ শহরের এক মুসলিম নারীর দায়ের করা ক্ষতিপূরণ মামলায় তাকে ৮৫,০০০ মার্কিন ডলার প্রদান করার জন্য নির্দেশ দিয়েছে দেশটির একটি আদালত।

পুলিশ হেফাজতে থাকার সময় একজন পুলিশ অফিসার ওই নারীকে জোরপূর্বক তার হিজাব খুলতে বাধ্য করার জন্য ২০১৬ সালে তিনি মামলাটি দায়ের করেছিল।

মামলার বিবরণ অনুযায়ী, ‘লো রাইডার’ গাড়ি চালানোর জন্য পুলিশ ক্রিস্টি পাওয়েল ও তার স্বামীকে আটক করে।পরে পাওয়েলের নামে ওয়ারেন্ট জারি হলে পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার দেখায়।

পাওয়েলকে একজন নারী পুলিশ অফিসারের কাছে হস্তান্তর করার জন্য তার স্বামী অনুরোধ জানান। কিন্তু তার এই অনুরোধ প্রত্যাখ্যান করা হয় এবং পাওয়েলকে জানানো হয় যে তাকে তার হিজাব অপসারণ করতে হবে। পাওয়েল তার হিজাব ছাড়াই কারাগারে রাত কাটান। পরে তার স্বামী তার জামিননামা দাখিল করার পর তাকে তার হিজাব ফিরিয়ে দেয়া হয়।

এই মামলার রায়ে বলা হয়, পাওয়েলকে তার ধর্মীয় পোশাক হিজাব ছাড়াই জনস্মুখে হাজির হতে বাধ্য করা হয়েছিল।

এতে আরো বলা হয়, ‘অবাধ ধর্ম চর্চা থেকে বঞ্চনার ফলে ক্রিস্টি পাওয়েল গুরুতর অস্বস্তি, অপমান এবং মানসিক যন্ত্রণা ভোগ করেছেন।’

২০১৬ সালের এপ্রিলে পাওয়েল মামলাটি দায়ের করেন। তিনি এতে অভিযোগ করেন যে, পুলিশ বিভাগ তার প্রথম সংশোধনী অধিকারকে লঙ্ঘন করেছে।

প্রথম সংশোধনী অধিকার হচ্ছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সংবিধানের একটি সংশোধনী। এতে অবাধ মত প্রকাশের অধিকারের নিশ্চয়তা দেয়া হয়েছে। এই অধিকারের মধ্য সমাবেশের স্বাধীনতা, সংবাদপত্রের স্বাধীনতা, ধর্মীয় স্বাধীনতা এবং বাক স্বাধীনতা অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে আমেরিকান-ইসলামিক রিলেশনস নেভিগেশন কাউন্সিল এই মামলায় জয়ী হওয়ার জন্য পাওয়েলের প্রশংসা করেছে।

এতে বলা হয়, ‘ধর্মীয় স্বাধীনতার অধিকার রক্ষার জন্য ক্রিস্টি পাওয়েলের সংগ্রামের জন্য আমরা তার প্রশংসা করছি।’

পাওয়েল আমেরিকা-ইসলামিক রিলেশন্স কাউন্সিলকে জানান, তিনি এই বাজে অভিজ্ঞতার সবশেষ মুসলিম নারী হতে চেয়েছিলেন। তার মতো আর কোনো মুসলিম নারী যেন এ রকম অভিজ্ঞার শিকার না হয় সেজন্যই তিনি আইনের আশ্রয় নেন বলে জানান।

তিনি বলেন, ‘আমি চাই যে আমার মুসলিম বোনেরা হিজাব পরিধানের মাধ্যমে সবসময় আরাম এবং নিরাপদ বোধ করুক এবং এই অধিকার আদায়ে তারা মাথা তুলে দাঁড়াক।’

সূত্র: সিএনএন

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X