বুধবার, ২১শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৯ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ভোর ৫:১৭
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Wednesday, September 7, 2016 12:21 pm
A- A A+ Print

১০ টাকা কেজি চালের প্রতিশ্রুতি ছিল: খাদ্যমন্ত্রী মন্ত্রী কামরুল

241405_1

বুধবার (৭ সেপ্টেম্বর) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কুড়িগ্রাম জেলা থেকে দরিদ্রদের জন্য ১০ টাকা দরে প্রতি কেজি চাল বিতরণ কর্মসূচী উদ্বোধন করবেন। তৃণমূল মানুষের কাছে কমমূল্যে চাল পৌঁছে দিতে রেশনিং আকারে চাল বিতরণের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। আপাতত ৫০ লক্ষ পরিবারের জন্য এই কর্মসূচী শুরু করা হবে, প্রয়োজনে এর আকার আরো বাড়ানো হবে বলে জানিয়েছেন খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম। মন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের প্রতিশ্রুতি ছিলো দেশের দরিদ্র মানুষের কাছে কমমূল্যের চাল পৌঁছে দেওয়া। এই কর্মসূচী সেই প্রতিশ্রুতিরই বাস্তবায়ন। আমরা আশা করছি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর স্যানিটেশন, আশ্রয়ন, কিমিউনিটি ক্লিনিক, মাতৃত্বকালীন ভাতা, বিধবা ভাতাসহ বিভিন্ন নিরাপত্তা বলয় কর্মসূচীর সাথে এই কর্মসূচীটিও যোগ করা হবে। তবে টিআর, কাবিখা’র সাথে এই কর্মসূচীর কোন সম্পর্ক নেই।’ তিনি বলেন, আমরা বছরে ৫ মাস ৫০ লক্ষ হতদরিদ্র মানুষ বা পরিবারের মাঝে এই চাল বিতরণ করবো। প্রতিমাসে প্রতিটি পরিবারকে ৩০ কেজি করে চাল দেওয়া হবে। প্রাকৃতিক দুর্যোগ, চালের দাম বৃদ্ধিসহ বিভিন্ন প্রতিকূল পরিস্থিতিতে তাদের চাল দেওয়া হবে। মার্চ, এপ্রিল, সেপ্টেম্বর, অক্টোবর, নভেম্বর, এই ৫ মাস চাল বিতরণ করা হবে। চাল বিতরণ কর্মসূচী নির্দিষ্ট এলাকাভিত্তিক কিনা, জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘সারদেশেই চাল বিতরণ কর্মসূচী চলবে। তবে রেশিও অনুযায়ী কোন এলাকায় হয়তো একটু বেশি কোথাও তুলনামূলক কম চাল বিতরণ করা হবে। কিন্তু সারদেশই এই কর্মসূচীর আওতায়ভূক্ত। ‘ইএনও’র নেতৃত্বে কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির তালিকার ওপর ভিত্তি করে কার্ড বিতরণের পর চাল বিতরণ করা হবে।’ সরকারিভাবে মানুষের কল্যাণের জন্য যেসব উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়, সেখানে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নীতির কথা শোনা যায়। এই নতুন এবং বৃহৎ কর্মসূচীতে অনিয়ম ঠেকাতে এবং প্রকৃত দরিদ্রদের সাহয্য নিশ্চিত করতে কোন পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে? প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘কর্মসূচীটি সুষ্ঠু করতে যথেষ্ট পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে এবং ক্রমান্বয়ে আরো কার্যকরী পদক্ষেপ নেওয়া হবে। হতদরিদ্রদের সাহায্য নিশ্চিত করতে আমরা আন্তরিকভাবে চেষ্টা করছি। আমরা আশা করি আমাদের এই প্রচেষ্টা সফল হবে।’ সূত্র: বিবিসি বাংলা

Comments

Comments!

 ১০ টাকা কেজি চালের প্রতিশ্রুতি ছিল: খাদ্যমন্ত্রী মন্ত্রী কামরুলAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

১০ টাকা কেজি চালের প্রতিশ্রুতি ছিল: খাদ্যমন্ত্রী মন্ত্রী কামরুল

Wednesday, September 7, 2016 12:21 pm
241405_1

বুধবার (৭ সেপ্টেম্বর) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কুড়িগ্রাম জেলা থেকে দরিদ্রদের জন্য ১০ টাকা দরে প্রতি কেজি চাল বিতরণ কর্মসূচী উদ্বোধন করবেন। তৃণমূল মানুষের কাছে কমমূল্যে চাল পৌঁছে দিতে রেশনিং আকারে চাল বিতরণের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। আপাতত ৫০ লক্ষ পরিবারের জন্য এই কর্মসূচী শুরু করা হবে, প্রয়োজনে এর আকার আরো বাড়ানো হবে বলে জানিয়েছেন খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম।

মন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের প্রতিশ্রুতি ছিলো দেশের দরিদ্র মানুষের কাছে কমমূল্যের চাল পৌঁছে দেওয়া। এই কর্মসূচী সেই প্রতিশ্রুতিরই বাস্তবায়ন। আমরা আশা করছি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর স্যানিটেশন, আশ্রয়ন, কিমিউনিটি ক্লিনিক, মাতৃত্বকালীন ভাতা, বিধবা ভাতাসহ বিভিন্ন নিরাপত্তা বলয় কর্মসূচীর সাথে এই কর্মসূচীটিও যোগ করা হবে। তবে টিআর, কাবিখা’র সাথে এই কর্মসূচীর কোন সম্পর্ক নেই।’

তিনি বলেন, আমরা বছরে ৫ মাস ৫০ লক্ষ হতদরিদ্র মানুষ বা পরিবারের মাঝে এই চাল বিতরণ করবো। প্রতিমাসে প্রতিটি পরিবারকে ৩০ কেজি করে চাল দেওয়া হবে। প্রাকৃতিক দুর্যোগ, চালের দাম বৃদ্ধিসহ বিভিন্ন প্রতিকূল পরিস্থিতিতে তাদের চাল দেওয়া হবে। মার্চ, এপ্রিল, সেপ্টেম্বর, অক্টোবর, নভেম্বর, এই ৫ মাস চাল বিতরণ করা হবে।

চাল বিতরণ কর্মসূচী নির্দিষ্ট এলাকাভিত্তিক কিনা, জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘সারদেশেই চাল বিতরণ কর্মসূচী চলবে। তবে রেশিও অনুযায়ী কোন এলাকায় হয়তো একটু বেশি কোথাও তুলনামূলক কম চাল বিতরণ করা হবে। কিন্তু সারদেশই এই কর্মসূচীর আওতায়ভূক্ত। ‘ইএনও’র নেতৃত্বে কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির তালিকার ওপর ভিত্তি করে কার্ড বিতরণের পর চাল বিতরণ করা হবে।’

সরকারিভাবে মানুষের কল্যাণের জন্য যেসব উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়, সেখানে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নীতির কথা শোনা যায়। এই নতুন এবং বৃহৎ কর্মসূচীতে অনিয়ম ঠেকাতে এবং প্রকৃত দরিদ্রদের সাহয্য নিশ্চিত করতে কোন পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে?

প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘কর্মসূচীটি সুষ্ঠু করতে যথেষ্ট পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে এবং ক্রমান্বয়ে আরো কার্যকরী পদক্ষেপ নেওয়া হবে। হতদরিদ্রদের সাহায্য নিশ্চিত করতে আমরা আন্তরিকভাবে চেষ্টা করছি। আমরা আশা করি আমাদের এই প্রচেষ্টা সফল হবে।’

সূত্র: বিবিসি বাংলা

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X