শনিবার, ২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১২ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ১০:০৪
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Sunday, July 31, 2016 9:52 am
A- A A+ Print

১২ নদীতে বিপদসীমার উপরে ১৮টি পয়েন্ট, ঢাকার আশপাশের নদীর পানি বৃদ্ধির শঙ্কা

6m8bet6hznvl_136812

 ভারতের ছেড়ে দেওয়া পানির ঢল নেমেছে বাংলাদেশের নদ-নদীতে। আগামী ২৪ ঘণ্টায় ঢাকার বুড়িগঙ্গাসহ আশপাশের বালু ও শীতলক্ষা নদীর পানি বৃদ্ধি পাবে। বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় রাজবাড়ি, মানিকগঞ্জ, মুন্সিগঞ্জ ও শরিয়তপুরে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ার শঙ্কা দেখা দিয়েছে। সূত্র জানিয়েছে, নতুন করে রাজবাড়ী, ফরিদপুর, শরীয়তপুর, মাদারীপুর, চাঁদপুর, বরিশাল জেলার আরও কিছু প্লাবিত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। বন্যায় ৩ জেলায় ১৩ জনের প্রাণহানি হয়েছে বলে সরকারিভাবে জানানো হয়েছে। তবে বেসরকারিভাবে ১৪জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গিয়েছে। এর মধ্যে রংপুরে একজন, কুড়িগ্রামে দুইজন, গাইবান্ধায় চারজন এবং জামালপুরে সাতজন। সূত্র মতে, হঠাৎ করেই ভারতের ফারাক্কাসহ গজল ডোবা ব্যারেজের সব গেট খুলে দেওয়ায় উত্তরের জেলাগুলোতে শুকনো মৌসুমেও সৃষ্টি হয়েছে বন্যার। সারা দেশের নদ-নদীগুলোতে ৯০ পয়েন্টের মধ্যে ১৮টি পয়েন্টে পানি বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এসব নদীর মধ্যে সবচেয়ে বেশি পানি বৃদ্ধি পেয়েছে টাঙ্গাইলের ধলেশ্বরী নদীতে। ১৪টি জেলার উপর দিয়ে প্রবাহিত ১২টি নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। পনি বৃদ্ধি পেয়েছে যমুনা, ধরলা, আত্রাই, পদ্মা, তিতাস, ঘাঘটসহ বিভিন্ন পয়েন্টে। বন্যার বিষয়ে সরকারের দূর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় বলছে, উজান(ভারত থেকে নেমে আসা পানির ঢল) থেকে পাহাড়ী ঢলের পানি বাংলাদেশের নদ-নদীতে পড়ছে। এছাড়াও অতি বর্ষণের কারনে সারা দেশের বিভিন্ন নদ-নদীতে গতকয়েক দিনে পানি বৃদ্ধি পেয়ে ১৪টি জেলায় বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। এরমধ্যে ১২ নদীর ৯০ টি পয়েন্টের মধ্যে সর্বশেষ ১৮ টি পয়েন্ট দিয়ে বিপদসীমার উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। এর মধ্যে ১১টি পয়েন্টে পানি বেড়েইে চলছে। এরমধ্যে টাঙ্গাইলের ধলেশ্বরী নদীতে বিপদসীমার ১৩৫ সে.মি উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। এছাড়াও পদ্মার গোয়ালন্দে ৯৭ সেমি, যমুনার বাহাদুরাবাদে ১১৬ সেমি ও সারিয়াকন্দি পয়েন্টে ৯৭ সেমি, আত্রাই নদীতে সিরাজগঞ্জের বাঘাবাড়ি পয়েন্টে ১০২ সেমি পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। গত ২৯ জুলাই থেকে ৩০ জুলাই সন্ধ্যা ছয়টা পর্যন্ত সময়ের হিসাব করেছে মন্ত্রণালয়। সূত্র জানিয়েছে, একই সময়ে ৯০টি পয়েন্টের মধ্যে পানি বৃদ্ধি পেয়েছে ৩৬টির, হ্রাস পেয়েছে ৪৯টির, তথ্য পায়নি ৪টির, স্থিতিশীল রয়েছে ১ পয়েন্টে। দেশের উত্তরের জেলাগুলোতে হঠাৎ বন্যায় গৃহহীন হয়ে পড়েছে হাজার-হাজার মানুষ। বানভাসি মানুষ আশ্রয় নিয়েছে বেড়িবাঁধে। নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে বাড়ি-ঘর, স্কুল-কলেজ, মাদ্রাসাসহ বিভিন্ন স্থাপনা। ত্রাণ ও দূর্যোগ মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ২৯ জুলাই পর্যন্ত বন্যায় তিন লাখ ৯৩ হাজার ৪৯৬টি পরিবারের মোট ১৪ লাখ ৭৫ হাজার ৬১৫জন মানুষ ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। ৯ হাজার ৩১৪টি ঘর-বাড়ি সম্পূর্ণ এবং ১২ হাজার ৩৭১টি আংশিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। আকস্মিক বন্যার বিষয়ে রাজনৈতিক দল ইসলামী ঐক্যজোটের পক্ষ থেকে দলটির চেয়ারম্যান মাওলানা আবদুল লতিফ এক বিবৃতিতে বলেছেন, পশ্চিমবঙ্গের মূখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির প্রতিনিধি বর্ষাকালে বাংলাদেশকে পানি দেয়া হবে বলে যে ব্যাঙ্গুক্তি করেছিলেন, তা আজ সত্যে পরিণত হয়েছে। ভারত গজলডোবা বাঁধের পানি ছেড়ে দেয়ায় দেশের উত্তরাঞ্চল বন্যা কবলিত হয়েছে। তিনি আরও বলেছেন, ভারতের এই নদী আগ্রাসনের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক আন্তর্জাতিক সংগঠন ইন্টারন্যাশনাল রিভার্স নেটওয়ার্ক, হল্যান্ড ভিত্তিক ইন্টারন্যাশনাল ওয়াটার ট্রাইব্যুনাল, থার্ড ওয়ার্ল্ড ওয়াটার ফোরাম প্রভৃতি আন্তর্জাতিক ফোরামে উত্থাপন করতে হবে। এছাড়া ভারতের এসব প্রকল্পে সাহায্য না দেয়ার জন্যে বিশ্ব ব্যাংক, আইএমএফ ও এডিবিসহ আন্তর্জাতিক অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠানের প্রতি আহ্বান করতে হবে বাংলাদেশকে। ইতিপূর্বে ফ্রান্সের বিরুদ্ধে স্পেন, হাঙ্গেরীর বিরুদ্ধে স্লোভাকিয়া, ভারতের বিরুদ্ধে পাকিস্তান আন্তর্জাতিক আদালতে মামলা দায়ের করে নিজ-নিজ দেশের পানির অধিকার আদায় করতে সক্ষম হয়েছে। বন্যার বিষয়ে নীলফামারী থেকে শীর্ষ নিউজের প্রতিনিধি আব্দুর রাজ্জাক জানিয়েছেন, এ বছর নীলফামারী জেলায় স্বাভাবিকের চেয়েও কম বৃষ্টিপাত হওয়ার পরেও তিস্তার ভয়াল রূপ দেখেছে জেলার তিস্তা অববাহিকার বাসিন্দারা। তিস্তার এ ভয়াল রূপ গত ৩০ বছরেও দেখেনি বাসিন্দারা। তাদের মতে ভারতের ছেড়ে দেয়া অতিরিক্ত পানির কারনেই তিস্তাপাড় বন্যায় কবলিত। এবিষয়ে নীলফামারীর ডালিয়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোস্তাফিজুর রহমান বলেছেন, বর্ষার শুরুতে ভারত তাদের গজলডোবা ব্যারেজের সবগুলি গেট খুলে রাখে। তাদের পানি অন্যান্য বছরের মত এবারও তিস্তায় এসে পড়ে বন্যার সৃষ্টি হয়েছে। তিনি আরো জানান, তিস্তার ভারতীয় অংশের ক্যাচমেন্ট এলাকা অনেক বড়। এ ক্যাচমেন্ট এলাকার পানি বের করা হয় তিস্তা পয়েন্ট দিয়ে কুড়িগ্রামে জেলা প্রতিনিধি খন্দকার একরামুল হক স¤্রাট জানিয়েছেন, কুড়িগ্রামে নদ-নদীর পানি সামান্য হ্রাস পেলেও ব্রহ্মপুত্রের পানি বিপদসীমার ৮২ সেন্টিমিটার ও ধরলা নদীর পানি বিপদসীমার ৭২ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। ফলে বন্যা পরিস্থিতির কোন উন্নতি হয়নি। দুর্ভোগ কমেনি জেলার ৯ উপজেলার ৬ লক্ষাধিক বানভাসীর।  সদরের পাঁচগাছি ইউনিয়নের সাথী ও নাগেশ্বরী উপজেলার হাছনাবাদ ইউনিয়নের খাদিজা এবং চিলমারীর অষ্টমীর চরের আব্দুস সামাদের দেড় বছরের কন্যা শিল্পীসহ পানিতে ডুবে ৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে গত ১৩দিনে জেলার বিভিন্ন উপজেলায় ৭জনের সলিল সমাধি হল।মৃতদের সম্বন্ধে এলাকাবাসীরা জানায়, পাঁচগাছী ইউনিয়নের কলেজ-পাড়া গ্রামের সাথী (৮) নামের এই শিশু কলা গাছের ভেলা থেকে নিখোঁজ হয়। শনিবার সকালে তার মৃতদেহ পানির ওপর ভাসতে দেখে এলাকাবাসী। অন্যদিকে নাগেশ্বরী উপজেলার হাছনাবাদে সোলায়মান আলীর কন্যা খাদিজা (১৮) শনিবার সকালে বন্যার পানিতে ডুবে মারা গেছে। এদিকে চিলমারী উপজেলার রানীগঞ্জে একটি সংযোগ সড়কের ৩০ মিটার ভেঙ্গে পানির স্রোতে ৪ টি বাড়ী ভেসে গেছে। নতুন করে তলিয়ে গেছে ৫টি গ্রাম। জেলায় বন্যার্তদের জন্য ৮৫ টি মেডিকেল টিম কাজ করলেও তাদের দেখা মিলছে না। জেলা প্রশাসক খান মোঃ নুরুল আমিন জানান, বন্যা দুর্গতের মাঝে এ পর্যন্ত ৫শ ৭৫ মেট্রিক টন চাউল ও সাড়ে ১৫ লাখ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে যা ইতোমধ্যেই বিতরন করা হয়েছে। এছাড়া শুক্রবার বিকেলে ভুরুঙ্গামারীতে দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রনালয়েন যুগ্ন-সচিব ডঃ মোঃ আতিকুর রহমান ও দুর্যোগ ও ত্রাণ ব্যবস্থাপনা পরিচালক উপজেলার বন্যার্ত এলাকা পরিদর্শন করেন।

Comments

Comments!

 ১২ নদীতে বিপদসীমার উপরে ১৮টি পয়েন্ট, ঢাকার আশপাশের নদীর পানি বৃদ্ধির শঙ্কাAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

১২ নদীতে বিপদসীমার উপরে ১৮টি পয়েন্ট, ঢাকার আশপাশের নদীর পানি বৃদ্ধির শঙ্কা

Sunday, July 31, 2016 9:52 am
6m8bet6hznvl_136812
 ভারতের ছেড়ে দেওয়া পানির ঢল নেমেছে বাংলাদেশের নদ-নদীতে। আগামী ২৪ ঘণ্টায় ঢাকার বুড়িগঙ্গাসহ আশপাশের বালু ও শীতলক্ষা নদীর পানি বৃদ্ধি পাবে। বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় রাজবাড়ি, মানিকগঞ্জ, মুন্সিগঞ্জ ও শরিয়তপুরে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ার শঙ্কা দেখা দিয়েছে।

সূত্র জানিয়েছে, নতুন করে রাজবাড়ী, ফরিদপুর, শরীয়তপুর, মাদারীপুর, চাঁদপুর, বরিশাল জেলার আরও কিছু প্লাবিত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

বন্যায় ৩ জেলায় ১৩ জনের প্রাণহানি হয়েছে বলে সরকারিভাবে জানানো হয়েছে। তবে বেসরকারিভাবে ১৪জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গিয়েছে। এর মধ্যে রংপুরে একজন, কুড়িগ্রামে দুইজন, গাইবান্ধায় চারজন এবং জামালপুরে সাতজন।

সূত্র মতে, হঠাৎ করেই ভারতের ফারাক্কাসহ গজল ডোবা ব্যারেজের সব গেট খুলে দেওয়ায় উত্তরের জেলাগুলোতে শুকনো মৌসুমেও সৃষ্টি হয়েছে বন্যার। সারা দেশের নদ-নদীগুলোতে ৯০ পয়েন্টের মধ্যে ১৮টি পয়েন্টে পানি বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এসব নদীর মধ্যে সবচেয়ে বেশি পানি বৃদ্ধি পেয়েছে টাঙ্গাইলের ধলেশ্বরী নদীতে। ১৪টি জেলার উপর দিয়ে প্রবাহিত ১২টি নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। পনি বৃদ্ধি পেয়েছে যমুনা, ধরলা, আত্রাই, পদ্মা, তিতাস, ঘাঘটসহ বিভিন্ন পয়েন্টে।

বন্যার বিষয়ে সরকারের দূর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় বলছে, উজান(ভারত থেকে নেমে আসা পানির ঢল) থেকে পাহাড়ী ঢলের পানি বাংলাদেশের নদ-নদীতে পড়ছে। এছাড়াও অতি বর্ষণের কারনে সারা দেশের বিভিন্ন নদ-নদীতে গতকয়েক দিনে পানি বৃদ্ধি পেয়ে ১৪টি জেলায় বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। এরমধ্যে ১২ নদীর ৯০ টি পয়েন্টের মধ্যে সর্বশেষ ১৮ টি পয়েন্ট দিয়ে বিপদসীমার উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। এর মধ্যে ১১টি পয়েন্টে পানি বেড়েইে চলছে। এরমধ্যে টাঙ্গাইলের ধলেশ্বরী নদীতে বিপদসীমার ১৩৫ সে.মি উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। এছাড়াও পদ্মার গোয়ালন্দে ৯৭ সেমি, যমুনার বাহাদুরাবাদে ১১৬ সেমি ও সারিয়াকন্দি পয়েন্টে ৯৭ সেমি, আত্রাই নদীতে সিরাজগঞ্জের বাঘাবাড়ি পয়েন্টে ১০২ সেমি পানি বৃদ্ধি পেয়েছে।

গত ২৯ জুলাই থেকে ৩০ জুলাই সন্ধ্যা ছয়টা পর্যন্ত সময়ের হিসাব করেছে মন্ত্রণালয়।

সূত্র জানিয়েছে, একই সময়ে ৯০টি পয়েন্টের মধ্যে পানি বৃদ্ধি পেয়েছে ৩৬টির, হ্রাস পেয়েছে ৪৯টির, তথ্য পায়নি ৪টির, স্থিতিশীল রয়েছে ১ পয়েন্টে।

দেশের উত্তরের জেলাগুলোতে হঠাৎ বন্যায় গৃহহীন হয়ে পড়েছে হাজার-হাজার মানুষ। বানভাসি মানুষ আশ্রয় নিয়েছে বেড়িবাঁধে। নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে বাড়ি-ঘর, স্কুল-কলেজ, মাদ্রাসাসহ বিভিন্ন স্থাপনা।

ত্রাণ ও দূর্যোগ মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ২৯ জুলাই পর্যন্ত বন্যায় তিন লাখ ৯৩ হাজার ৪৯৬টি পরিবারের মোট ১৪ লাখ ৭৫ হাজার ৬১৫জন মানুষ ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। ৯ হাজার ৩১৪টি ঘর-বাড়ি সম্পূর্ণ এবং ১২ হাজার ৩৭১টি আংশিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে।

আকস্মিক বন্যার বিষয়ে রাজনৈতিক দল ইসলামী ঐক্যজোটের পক্ষ থেকে দলটির চেয়ারম্যান মাওলানা আবদুল লতিফ এক বিবৃতিতে বলেছেন, পশ্চিমবঙ্গের মূখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির প্রতিনিধি বর্ষাকালে বাংলাদেশকে পানি দেয়া হবে বলে যে ব্যাঙ্গুক্তি করেছিলেন, তা আজ সত্যে পরিণত হয়েছে। ভারত গজলডোবা বাঁধের পানি ছেড়ে দেয়ায় দেশের উত্তরাঞ্চল বন্যা কবলিত হয়েছে।

তিনি আরও বলেছেন, ভারতের এই নদী আগ্রাসনের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক আন্তর্জাতিক সংগঠন ইন্টারন্যাশনাল রিভার্স নেটওয়ার্ক, হল্যান্ড ভিত্তিক ইন্টারন্যাশনাল ওয়াটার ট্রাইব্যুনাল, থার্ড ওয়ার্ল্ড ওয়াটার ফোরাম প্রভৃতি আন্তর্জাতিক ফোরামে উত্থাপন করতে হবে। এছাড়া ভারতের এসব প্রকল্পে সাহায্য না দেয়ার জন্যে বিশ্ব ব্যাংক, আইএমএফ ও এডিবিসহ আন্তর্জাতিক অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠানের প্রতি আহ্বান করতে হবে বাংলাদেশকে। ইতিপূর্বে ফ্রান্সের বিরুদ্ধে স্পেন, হাঙ্গেরীর বিরুদ্ধে স্লোভাকিয়া, ভারতের বিরুদ্ধে পাকিস্তান আন্তর্জাতিক আদালতে মামলা দায়ের করে নিজ-নিজ দেশের পানির অধিকার আদায় করতে সক্ষম হয়েছে।

বন্যার বিষয়ে নীলফামারী থেকে শীর্ষ নিউজের প্রতিনিধি আব্দুর রাজ্জাক জানিয়েছেন, এ বছর নীলফামারী জেলায় স্বাভাবিকের চেয়েও কম বৃষ্টিপাত হওয়ার পরেও তিস্তার ভয়াল রূপ দেখেছে জেলার তিস্তা অববাহিকার বাসিন্দারা। তিস্তার এ ভয়াল রূপ গত ৩০ বছরেও দেখেনি বাসিন্দারা। তাদের মতে ভারতের ছেড়ে দেয়া অতিরিক্ত পানির কারনেই তিস্তাপাড় বন্যায় কবলিত। এবিষয়ে নীলফামারীর ডালিয়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোস্তাফিজুর রহমান বলেছেন, বর্ষার শুরুতে ভারত তাদের গজলডোবা ব্যারেজের সবগুলি গেট খুলে রাখে। তাদের পানি অন্যান্য বছরের মত এবারও তিস্তায় এসে পড়ে বন্যার সৃষ্টি হয়েছে।

তিনি আরো জানান, তিস্তার ভারতীয় অংশের ক্যাচমেন্ট এলাকা অনেক বড়। এ ক্যাচমেন্ট এলাকার পানি বের করা হয় তিস্তা পয়েন্ট দিয়ে

কুড়িগ্রামে জেলা প্রতিনিধি খন্দকার একরামুল হক স¤্রাট জানিয়েছেন, কুড়িগ্রামে নদ-নদীর পানি সামান্য হ্রাস পেলেও ব্রহ্মপুত্রের পানি বিপদসীমার ৮২ সেন্টিমিটার ও ধরলা নদীর পানি বিপদসীমার ৭২ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। ফলে বন্যা পরিস্থিতির কোন উন্নতি হয়নি। দুর্ভোগ কমেনি জেলার ৯ উপজেলার ৬ লক্ষাধিক বানভাসীর।  সদরের পাঁচগাছি ইউনিয়নের সাথী ও নাগেশ্বরী উপজেলার হাছনাবাদ ইউনিয়নের খাদিজা এবং চিলমারীর অষ্টমীর চরের আব্দুস সামাদের দেড় বছরের কন্যা শিল্পীসহ পানিতে ডুবে ৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে গত ১৩দিনে জেলার বিভিন্ন উপজেলায় ৭জনের সলিল সমাধি হল।মৃতদের সম্বন্ধে এলাকাবাসীরা জানায়, পাঁচগাছী ইউনিয়নের কলেজ-পাড়া গ্রামের সাথী (৮) নামের এই শিশু কলা গাছের ভেলা থেকে নিখোঁজ হয়। শনিবার সকালে তার মৃতদেহ পানির ওপর ভাসতে দেখে এলাকাবাসী। অন্যদিকে নাগেশ্বরী উপজেলার হাছনাবাদে সোলায়মান আলীর কন্যা খাদিজা (১৮) শনিবার সকালে বন্যার পানিতে ডুবে মারা গেছে। এদিকে চিলমারী উপজেলার রানীগঞ্জে একটি সংযোগ সড়কের ৩০ মিটার ভেঙ্গে পানির স্রোতে ৪ টি বাড়ী ভেসে গেছে। নতুন করে তলিয়ে গেছে ৫টি গ্রাম। জেলায় বন্যার্তদের জন্য ৮৫ টি মেডিকেল টিম কাজ করলেও তাদের দেখা মিলছে না। জেলা প্রশাসক খান মোঃ নুরুল আমিন জানান, বন্যা দুর্গতের মাঝে এ পর্যন্ত ৫শ ৭৫ মেট্রিক টন চাউল ও সাড়ে ১৫ লাখ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে যা ইতোমধ্যেই বিতরন করা হয়েছে। এছাড়া শুক্রবার বিকেলে ভুরুঙ্গামারীতে দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রনালয়েন যুগ্ন-সচিব ডঃ মোঃ আতিকুর রহমান ও দুর্যোগ ও ত্রাণ ব্যবস্থাপনা পরিচালক উপজেলার বন্যার্ত এলাকা পরিদর্শন করেন।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X