শনিবার, ২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১২ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ১০:১৪
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Thursday, October 27, 2016 12:38 pm
A- A A+ Print

১৩ ঘণ্টা বিদ্যুৎবিহীন

power-shock-337x205

সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন এলাকা গতকাল বুধবার একটানা প্রায় ১৩ ঘণ্টা বিদ্যুৎবিহীন ছিল। এতে এলাকার হাজার হাজার গ্রাহক সীমাহীন দুর্ভোগে পড়েন। স্কুলগুলোতে এসএসসি পরীক্ষার্থীদের নির্বাচনী পরীক্ষা চলছে। শিক্ষার্থীদের বিদ্যুৎবিহীন কক্ষে গরমের মধ্যেই পরীক্ষা দিতে হয়েছে। এলাকাবাসী ও সিরাজগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ভুইয়াগাঁতী আঞ্চলিক কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, বিদ্যুৎ সরবরাহ লাইন নিয়মিত পরিষ্কার রাখার অংশ হিসেবে গতকাল সকাল আটটা থেকে সন্ধ্যা ছয়টা পর্যন্ত ২ নম্বর ফিডারের আওতাধীন এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ থাকবে বলে মাইকিং করা হয়। উপজেলার রায়গঞ্জ পৌরসভা, ধানগড়া ও ব্রহ্মগাছা ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকা ২ নম্বর ফিডারের অন্তর্ভুক্ত। তবে ঘোষণা অনুসারে সন্ধ্যা ছয়টায় বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হয়নি। নির্ধারিত সময় পেরিয়ে রাত নয়টার দিকে বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হয়। দীর্ঘ প্রায় ১৩ ঘণ্টা একটানা বিদ্যুৎ না থাকায় ভোগান্তিতে পড়ে এসব এলাকার মানুষ। উপজেলার ধানগড়া ইউনিয়নের বেতুয়া এলাকার জাহাঙ্গীর আলম সরকার বলেন, তাঁর নাতনি ঠান্ডাজনিত অসুস্থতায় ভুগছে। গতকাল নাতনিকে নিয়ে তিনি এখানে-সেখানে নেবুলাইজার দেওয়ার জন্য ঘুরেছেন। শেষে এক জায়গায় জেনারেটর চালিয়ে নাতনিকে নেবুলাইজার দেওয়ার ব্যবস্থা করেন। উপজেলা পরিষদ এলাকায় বিভিন্নজনের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, বিদ্যুৎ না থাকায় জেনারেটর দিয়ে চালানো ফটোকপি মেশিনে অনেকে বেশি টাকায় প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ফটোকপি করতে বাধ্য হন লোকজন। একেক কপিতে দাম রাখা হয় পাঁচ টাকা। উপজেলার ধানগড়া মডেল উচ্চবিদ্যালয়ের ইমরান নাজির খান, মেহেদি হাসান ও নাসিম উদ্দিন এবং উপজেলা সদর বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের হালিমা খাতুন, তানজুমা মেহজাবিন জানায়, তারা প্রত্যেকে আগামী বছর এসএসসি পরীক্ষা দেবে। স্কুলে এখন এসএসসি পরীক্ষার্থীদের নির্বাচনী পরীক্ষা চলছে। বিদ্যুৎ না থাকায় গরমে কাহিল হয়ে তাদের পরীক্ষা দিতে হয়েছে। রায়গঞ্জ পৌরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ডের রণতিথা এলাকার গৃহবধূ ফরিদা খাতুন বলেন, এত দীর্ঘ সময় বিদ্যুৎ না থাকায় সাংসারিক সব কাজই বিঘ্নিত হয়েছে। ছেলেমেয়েরা গরমে অস্থির হয়ে পড়াশোনা করতে পারছিল না। ১ নম্বর ওয়ার্ডের ধানগড়া এলাকার মরিয়ম পারভিন বলেন, প্রায় ১৩ ঘণ্টা একটানা বিদ্যুৎ বন্ধ রাখার যে বিড়ম্বনা, তা বলে শেষ করা যাবে না। বিশেষ করে ছেলেমেয়েদের পড়ালেখা ব্যাহত হয়েছে। তা ছাড়া এখন জীবন বিদ্যুৎনির্ভর হয়ে গেছে। তাই এ রকম দীর্ঘ সময় বিদ্যুৎ না থাকলে স্বাভাবিক জীবন ব্যাহত হয়। ধানগড়া বাজারের তালুকদার কম্পিউটারসের মালিক গোলাম মোক্তাদির তালুকদার বলেন, ‘সন্ধ্যা ছয়টায় বিদ্যুৎ আসবে বলে লোকজনকে বলেছিলাম ওই সময় আসতে। কিন্তু বিদ্যুৎ এল রাত প্রায় নয়টার সময়ে। ফলে এ দিন কোনো কাজই করা যায়নি। কোনো আয়ই করতে পারিনি।’ বিদ্যুৎ লাইন পরিষ্কার করতে সংযোগ বন্ধ রাখা হয়েছিল জানিয়ে সিরাজগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ভুইয়াগাঁতী আঞ্চলিক কার্যালয়ের উপমহাব্যবস্থাপক (ডিজিএম) শামীম খান বলেন, কাজ শেষ করার সঙ্গে সঙ্গে বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু হয়েছে।

Comments

Comments!

 ১৩ ঘণ্টা বিদ্যুৎবিহীনAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

১৩ ঘণ্টা বিদ্যুৎবিহীন

Thursday, October 27, 2016 12:38 pm
power-shock-337x205

সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন এলাকা গতকাল বুধবার একটানা প্রায় ১৩ ঘণ্টা বিদ্যুৎবিহীন ছিল। এতে এলাকার হাজার হাজার গ্রাহক সীমাহীন দুর্ভোগে পড়েন। স্কুলগুলোতে এসএসসি পরীক্ষার্থীদের নির্বাচনী পরীক্ষা চলছে। শিক্ষার্থীদের বিদ্যুৎবিহীন কক্ষে গরমের মধ্যেই পরীক্ষা দিতে হয়েছে।

এলাকাবাসী ও সিরাজগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ভুইয়াগাঁতী আঞ্চলিক কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, বিদ্যুৎ সরবরাহ লাইন নিয়মিত পরিষ্কার রাখার অংশ হিসেবে গতকাল সকাল আটটা থেকে সন্ধ্যা ছয়টা পর্যন্ত ২ নম্বর ফিডারের আওতাধীন এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ থাকবে বলে মাইকিং করা হয়। উপজেলার রায়গঞ্জ পৌরসভা, ধানগড়া ও ব্রহ্মগাছা ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকা ২ নম্বর ফিডারের অন্তর্ভুক্ত। তবে ঘোষণা অনুসারে সন্ধ্যা ছয়টায় বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হয়নি। নির্ধারিত সময় পেরিয়ে রাত নয়টার দিকে বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হয়। দীর্ঘ প্রায় ১৩ ঘণ্টা একটানা বিদ্যুৎ না থাকায় ভোগান্তিতে পড়ে এসব এলাকার মানুষ।

উপজেলার ধানগড়া ইউনিয়নের বেতুয়া এলাকার জাহাঙ্গীর আলম সরকার বলেন, তাঁর নাতনি ঠান্ডাজনিত অসুস্থতায় ভুগছে। গতকাল নাতনিকে নিয়ে তিনি এখানে-সেখানে নেবুলাইজার দেওয়ার জন্য ঘুরেছেন। শেষে এক জায়গায় জেনারেটর চালিয়ে নাতনিকে নেবুলাইজার দেওয়ার ব্যবস্থা করেন।
উপজেলা পরিষদ এলাকায় বিভিন্নজনের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, বিদ্যুৎ না থাকায় জেনারেটর দিয়ে চালানো ফটোকপি মেশিনে অনেকে বেশি টাকায় প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ফটোকপি করতে বাধ্য হন লোকজন। একেক কপিতে দাম রাখা হয় পাঁচ টাকা।

উপজেলার ধানগড়া মডেল উচ্চবিদ্যালয়ের ইমরান নাজির খান, মেহেদি হাসান ও নাসিম উদ্দিন এবং উপজেলা সদর বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের হালিমা খাতুন, তানজুমা মেহজাবিন জানায়, তারা প্রত্যেকে আগামী বছর এসএসসি পরীক্ষা দেবে। স্কুলে এখন এসএসসি পরীক্ষার্থীদের নির্বাচনী পরীক্ষা চলছে। বিদ্যুৎ না থাকায় গরমে কাহিল হয়ে তাদের পরীক্ষা দিতে হয়েছে।

রায়গঞ্জ পৌরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ডের রণতিথা এলাকার গৃহবধূ ফরিদা খাতুন বলেন, এত দীর্ঘ সময় বিদ্যুৎ না থাকায় সাংসারিক সব কাজই বিঘ্নিত হয়েছে। ছেলেমেয়েরা গরমে অস্থির হয়ে পড়াশোনা করতে পারছিল না।

১ নম্বর ওয়ার্ডের ধানগড়া এলাকার মরিয়ম পারভিন বলেন, প্রায় ১৩ ঘণ্টা একটানা বিদ্যুৎ বন্ধ রাখার যে বিড়ম্বনা, তা বলে শেষ করা যাবে না। বিশেষ করে ছেলেমেয়েদের পড়ালেখা ব্যাহত হয়েছে। তা ছাড়া এখন জীবন বিদ্যুৎনির্ভর হয়ে গেছে। তাই এ রকম দীর্ঘ সময় বিদ্যুৎ না থাকলে স্বাভাবিক জীবন ব্যাহত হয়।
ধানগড়া বাজারের তালুকদার কম্পিউটারসের মালিক গোলাম মোক্তাদির তালুকদার বলেন, ‘সন্ধ্যা ছয়টায় বিদ্যুৎ আসবে বলে লোকজনকে বলেছিলাম ওই সময় আসতে। কিন্তু বিদ্যুৎ এল রাত প্রায় নয়টার সময়ে। ফলে এ দিন কোনো কাজই করা যায়নি। কোনো আয়ই করতে পারিনি।’

বিদ্যুৎ লাইন পরিষ্কার করতে সংযোগ বন্ধ রাখা হয়েছিল জানিয়ে সিরাজগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ভুইয়াগাঁতী আঞ্চলিক কার্যালয়ের উপমহাব্যবস্থাপক (ডিজিএম) শামীম খান বলেন, কাজ শেষ করার সঙ্গে সঙ্গে বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু হয়েছে।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X