বুধবার, ২১শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৯ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সন্ধ্যা ৭:১২
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Tuesday, September 20, 2016 2:37 pm
A- A A+ Print

১ অক্টোবর থেকে নির্বাচনী প্রচারে নামছেন এরশাদ

244665_1

বাংলাদেশে জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে সিলেটে শাহজালাল (রহ.) মাজার জিয়ারত করে দলের প্রধানদের নির্বাচনী প্রচারে নামার রীতি রয়েছে। আগামী নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা না হলেও আগামী ১ অক্টোবর এই মাজার জিয়ারত করেই প্রচারে নামার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। আগামী তিন মাসের মধ্যে এরশাদ তিনশ আসনেই প্রার্থী বাছাইয়ের কাজ শেষ করবেন বলে জানিয়েছেন দলের মহাসচিব রুহুল আমিন হাওলাদার। জাতীয় পার্টি সংসদে প্রধান বিরোধী দল হলেও রাজনীতিতে দলটির অবস্থান এত সুসংহত নয়। বিএনপি-জামায়াত জোটের দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন বর্জনের কারণেই এরশাদের দল এই অবস্থানে যেতে পেরেছে। এরপর থেকে এরশাদ নানা সময় দাবি করে আসছেন, বিএনপির অবস্থান এখন আর আগের মত শক্তিশালী নয়, তাদের কর্মী সমর্থক তথা দেশবাসী জাতীয় পার্টির দিকেই তাকিয়ে আছে। জাপা নেতারা বলছেন, এরশাদ দুটি লক্ষ্যকে সামনে রেখে এগুচ্ছেন। এক. আগামী সংসদ নির্বাচনে সবকয়টি আসনে প্রার্থী দেয়া এবং দুই. নির্বাচনকে সামনে রেখে তৃণমূল পর্যায়ে দলকে শক্তিশালী ও গতিশীল করা। এই দুটি লক্ষ্যকে সামনে রেখেই এরশাদ সিলেট যাচ্ছেন বলে জানিয়েছেন নেতারা। শাহজালাল (রহ.) এর মাজার জিয়ারত ছাড়াও তিনি সেদিন সিলেটে সমাবেশ করবেন। জাতীয় পার্টির প্রধানের এই সফরকে সফল করতে সম্প্রতি সিলেট বিভাগীয় জাতীয় পার্টির সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত হয়। ওই সভায় জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় নেতারা ছাড়াও সিলেট বিভাগের চার জেলা জাতীয় পার্টির শীর্ষ নেতারা উপস্থিত ছিলেন। জানতে চাইলে সভায় জাতীয় পার্টির মহাসচিব এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদার বলেন, ‘জাতীয় পার্টি আগামীতে রাষ্ট্র পরিচালনা করার প্রস্তুতি নিচ্ছে। ওলি-আউলিলয়ার স্মৃতি বিজড়িত পূণ্যভূমি সিলেট থেকেই আমাদের আগামী সংসদ নির্বাচনের প্রস্তুতি শুরু হবে। ১ অক্টোবর হযরত শাহজালাল (রহ.) এর মাজার জিয়ারতের মাধ্যমে এরশাদ দেশের শান্তির যাত্রা শুরু করবেন।’ আগামী জাতীয় নির্বাচন কবে হতে পারে সেই ধারণা কি পেয়েছেন?- জানতে চাইলে জাতীয় পার্টির সভাপতিম-লীর সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘যথা সময়েই নির্বাচন হবে। ২০১৯ সালের আগে ভোট হবে না। কিন্তু তাই বলে আমরা বসে থাকতে পারি না। আর কেবল আমরা নয়, সব দলই নির্বাচনী প্রস্তুতির কাজ শুরু করে দিয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও ভোট চেয়েছেন।’ কাজী ফিরোজ রশীদ ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘আমরা কর্মীদেরকে সংগঠিত করতে চাই। এ জন্য দুই বছর খুব বেশি সময় নয়। এই সময়ের মধ্যে আমরা কর্মীদেরকে চাঙ্গা করবো, জনসংযোগে নামবো, প্রার্থী বাছাই করবো। যারা প্রার্থী হবেন তাদেরও প্রস্তুতির বিষয় আছে। এ জন্যই আমাদের চেয়ারম্যান আনুষ্ঠানিক প্রচারে নামছেন।’ ১৯৯০ সালে গণ আন্দোলনের মুখে এরশাদ সরকারের পতনের পরের বছরের জাতীয় নির্বাচনে সিলেট অঞ্চলে জাতীয় পার্টির বেশ ভালো ভোট পায়। ১৯৯৬ সালের নির্বাচনেও দলের একাধিক প্রার্থী জনপ্রিয়তার পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়। তবে এরপর থেকে দলে ভাঙনসহ বিভিন্ন কারণে সিলেট অঞ্চলে দলের প্রভাব কমে আসে আর দলের বহু নেতা-কর্মী বড় দুই দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপিতে চলে যান। জাপা নেতারা জানান, সিলেট সফরে জাতীয় পার্টির নেতা-কর্মীদেরকে আবারও একাট্টা করে দলকে শক্তিশারী করার চেষ্টা করবেন। সিলেটে জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক কমিটির প্রধান আবদুল্লাহ সিদ্দিকী ঢাকাটাইমসকে জানান, এরশাদের সমাবেশের জন্য সোমবার সিলেট সাব রেজিস্ট্রার অফিসের মাঠ বরাদ্দ চেয়ে আবেদন করা হয়েছে। তিনি বলেন, ‘সিলেট থেকেই জাতীয় পার্টি আগামী দিনে রাষ্ট্র পরিচালনার জন্য প্রস্তুতি শুরু করবে। এরশাদের সফর ঘিরে সিলেট জাতীয় পার্টি তৎপর হয়ে ওঠেছে।

Comments

Comments!

 ১ অক্টোবর থেকে নির্বাচনী প্রচারে নামছেন এরশাদAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

১ অক্টোবর থেকে নির্বাচনী প্রচারে নামছেন এরশাদ

Tuesday, September 20, 2016 2:37 pm
244665_1

বাংলাদেশে জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে সিলেটে শাহজালাল (রহ.) মাজার জিয়ারত করে দলের প্রধানদের নির্বাচনী প্রচারে নামার রীতি রয়েছে। আগামী নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা না হলেও আগামী ১ অক্টোবর এই মাজার জিয়ারত করেই প্রচারে নামার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ।

আগামী তিন মাসের মধ্যে এরশাদ তিনশ আসনেই প্রার্থী বাছাইয়ের কাজ শেষ করবেন বলে জানিয়েছেন দলের মহাসচিব রুহুল আমিন হাওলাদার।

জাতীয় পার্টি সংসদে প্রধান বিরোধী দল হলেও রাজনীতিতে দলটির অবস্থান এত সুসংহত নয়। বিএনপি-জামায়াত জোটের দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন বর্জনের কারণেই এরশাদের দল এই অবস্থানে যেতে পেরেছে। এরপর থেকে এরশাদ নানা সময় দাবি করে আসছেন, বিএনপির অবস্থান এখন আর আগের মত শক্তিশালী নয়, তাদের কর্মী সমর্থক তথা দেশবাসী জাতীয় পার্টির দিকেই তাকিয়ে আছে।

জাপা নেতারা বলছেন, এরশাদ দুটি লক্ষ্যকে সামনে রেখে এগুচ্ছেন। এক. আগামী সংসদ নির্বাচনে সবকয়টি আসনে প্রার্থী দেয়া এবং দুই. নির্বাচনকে সামনে রেখে তৃণমূল পর্যায়ে দলকে শক্তিশালী ও গতিশীল করা।

এই দুটি লক্ষ্যকে সামনে রেখেই এরশাদ সিলেট যাচ্ছেন বলে জানিয়েছেন নেতারা। শাহজালাল (রহ.) এর মাজার জিয়ারত ছাড়াও তিনি সেদিন সিলেটে সমাবেশ করবেন।

জাতীয় পার্টির প্রধানের এই সফরকে সফল করতে সম্প্রতি সিলেট বিভাগীয় জাতীয় পার্টির সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত হয়। ওই সভায় জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় নেতারা ছাড়াও সিলেট বিভাগের চার জেলা জাতীয় পার্টির শীর্ষ নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

জানতে চাইলে সভায় জাতীয় পার্টির মহাসচিব এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদার বলেন, ‘জাতীয় পার্টি আগামীতে রাষ্ট্র পরিচালনা করার প্রস্তুতি নিচ্ছে। ওলি-আউলিলয়ার স্মৃতি বিজড়িত পূণ্যভূমি সিলেট থেকেই আমাদের আগামী সংসদ নির্বাচনের প্রস্তুতি শুরু হবে। ১ অক্টোবর হযরত শাহজালাল (রহ.) এর মাজার জিয়ারতের মাধ্যমে এরশাদ দেশের শান্তির যাত্রা শুরু করবেন।’

আগামী জাতীয় নির্বাচন কবে হতে পারে সেই ধারণা কি পেয়েছেন?- জানতে চাইলে জাতীয় পার্টির সভাপতিম-লীর সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘যথা সময়েই নির্বাচন হবে। ২০১৯ সালের আগে ভোট হবে না। কিন্তু তাই বলে আমরা বসে থাকতে পারি না। আর কেবল আমরা নয়, সব দলই নির্বাচনী প্রস্তুতির কাজ শুরু করে দিয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও ভোট চেয়েছেন।’

কাজী ফিরোজ রশীদ ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘আমরা কর্মীদেরকে সংগঠিত করতে চাই। এ জন্য দুই বছর খুব বেশি সময় নয়। এই সময়ের মধ্যে আমরা কর্মীদেরকে চাঙ্গা করবো, জনসংযোগে নামবো, প্রার্থী বাছাই করবো। যারা প্রার্থী হবেন তাদেরও প্রস্তুতির বিষয় আছে। এ জন্যই আমাদের চেয়ারম্যান আনুষ্ঠানিক প্রচারে নামছেন।’

১৯৯০ সালে গণ আন্দোলনের মুখে এরশাদ সরকারের পতনের পরের বছরের জাতীয় নির্বাচনে সিলেট অঞ্চলে জাতীয় পার্টির বেশ ভালো ভোট পায়। ১৯৯৬ সালের নির্বাচনেও দলের একাধিক প্রার্থী জনপ্রিয়তার পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়। তবে এরপর থেকে দলে ভাঙনসহ বিভিন্ন কারণে সিলেট অঞ্চলে দলের প্রভাব কমে আসে আর দলের বহু নেতা-কর্মী বড় দুই দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপিতে চলে যান।

জাপা নেতারা জানান, সিলেট সফরে জাতীয় পার্টির নেতা-কর্মীদেরকে আবারও একাট্টা করে দলকে শক্তিশারী করার চেষ্টা করবেন।

সিলেটে জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক কমিটির প্রধান আবদুল্লাহ সিদ্দিকী ঢাকাটাইমসকে জানান, এরশাদের সমাবেশের জন্য সোমবার সিলেট সাব রেজিস্ট্রার অফিসের মাঠ বরাদ্দ চেয়ে আবেদন করা হয়েছে। তিনি বলেন, ‘সিলেট থেকেই জাতীয় পার্টি আগামী দিনে রাষ্ট্র পরিচালনার জন্য প্রস্তুতি শুরু করবে। এরশাদের সফর ঘিরে সিলেট জাতীয় পার্টি তৎপর হয়ে ওঠেছে।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X