বুধবার, ২১শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৯ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ১১:০২
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Monday, November 7, 2016 9:40 am
A- A A+ Print

২০০০ বছর আগের তরুণীর ‍মুখ পুনর্গঠন!

women1478484816

বিজ্ঞান তার নানা শাখার নানামুখী ঝলক দিয়ে আমাদের প্রতিদিন বিস্মিত করে চলেছে। প্রায় প্রতিদিনই কোনো না কোনো বিস্ময় উপহার দিয়ে চলেছে বিজ্ঞান।
  আসলে বিজ্ঞানের একটি গুরুত্বপূর্ণ আবিস্কার উম্মুক্ত করে দিতে পারে আরো অনেক বিষয়ের দ্বার। তেমনই এক আবিষ্কার থ্রিডি প্রিন্টার। ইদানিং এর নানামুখী ব্যবহার আমাদের নিয়ে যাচ্ছে বিস্ময়ের অন্য এক উচ্চতায়।   সম্প্রতি অস্ট্রেলিয়ার মেলবর্নে ইউনিভার্সিটি অব মেলবর্নের গবেষকরা জন্ম দিয়েছেন অপার এক বিস্ময়। এই ইউনিভার্সিটির বেজমেন্টে প্রায় ৯০ বছর ধরে পরে থাকা এক মমির মাথার খুলি থেকে উদ্ধার করা হয়েছে, মৃতার আসল চেহারা কেমন ছিল! ধারণা করা হচ্ছে প্রায় ২০০০ বছর পূর্বে এই মহিলার মৃত্যু হয়েছিল। ‘মেরিটামুন’ নামের এই মিশরীয় সুন্দরী ১৮ থেকে ২৫ বছরের বলে ধারণা করা হচ্ছে। তার মৃতদেহ মমি করে রাখা হয়েছিল।   সম্প্রতি এক অডিট চলাকালীন সময়ে এই মমির শুধু মাথার অংশ পাওয়া যায়। কোনো এক অজ্ঞাত কারণে মমির বাকি অংশ পাওয়া যায়নি। তবে বাকি অংশের জন্যে গবেষকরা বসে থাকেননি। তারা এই মাথার খুলি নিয়েই চালিয়ে গেছেন গবেষণা।   Women   মেরিটামুন দেখতে কেমন ছিল, সেটা ধারণা করার চেয়ে বিজ্ঞানীরা বাস্তবে দেখতে চেয়েছিলেন। তাই বেশকিছু ধাপে তারা এই অসাধ্যকে সাধ্য করেন। তারা এই খুলির সিটিস্ক্যান করেন। ইউনিভার্সিটি অব মেলবর্ন, ভিক্টোরিয়ান ইনস্টিটিউট অব ফরেনসিক মেডিসিনের সহায়তায় সিটি স্ক্যান এবং থ্রিডি প্রিন্টারের সহায়তায় তৈরি করেন অবিকল এই তরুণীর মুখ, অন্তত বিজ্ঞানীদের দাবি সেরকমই।   ইউনিভার্সিটি অব মেলবর্নের হ্যারি ব্রুকস অ্যালেন মিউজিয়াম কিউরেটর ড. রায়ান জেফারিসের মতে, এই উদ্যোগ অনেক সম্ভাবনার দ্বার খুলে দেবে। যেখানে আগে এ ধরনের মমির ক্ষেত্রে জল্পনা কল্পনা করা হতো যে, মমির ব্যক্তিটি দেখতে আসলেই কেমন ছিল? এই ধরনের প্রয়াস মানুষকে প্রকৃত অনুমান করতে সহায়তা করবে।   জেফারিসের মতে, এটা ইউনিভার্সিটি অব মেলবর্নের ছাত্রদের জন্য বিরাট সুযোগ করে দিল। কেননা এই মিউজিয়ামে ১২০০০ এর মতো এ ধরনের এনাটমির অংশ বা স্যাম্পল রয়েছে। যা তাদের ভবিষ্যত গবেষণায় যথেষ্ট সাহায্য করবে।   তবে এখন এই মুখমণ্ডল আবিষ্কারের পরে বিজ্ঞানীরা মেরিটামুনের জীবনযাপন বা কিভাবে মারা গিয়েছে এই সব বিষয় নিয়ে গবেষণা করার উদ্যোগ নিয়েছে। বিজ্ঞানীদের ধারনা, এই প্রয়াস তাদের ২০০০ বছর আগের জীবনযাপন কিংবা তখনকার অনেক তথ্য পেতে সাহায্য করবে।    

Comments

Comments!

 ২০০০ বছর আগের তরুণীর ‍মুখ পুনর্গঠন!AmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

২০০০ বছর আগের তরুণীর ‍মুখ পুনর্গঠন!

Monday, November 7, 2016 9:40 am
women1478484816

বিজ্ঞান তার নানা শাখার নানামুখী ঝলক দিয়ে আমাদের প্রতিদিন বিস্মিত করে চলেছে। প্রায় প্রতিদিনই কোনো না কোনো বিস্ময় উপহার দিয়ে চলেছে বিজ্ঞান।

 

আসলে বিজ্ঞানের একটি গুরুত্বপূর্ণ আবিস্কার উম্মুক্ত করে দিতে পারে আরো অনেক বিষয়ের দ্বার। তেমনই এক আবিষ্কার থ্রিডি প্রিন্টার। ইদানিং এর নানামুখী ব্যবহার আমাদের নিয়ে যাচ্ছে বিস্ময়ের অন্য এক উচ্চতায়।

 

সম্প্রতি অস্ট্রেলিয়ার মেলবর্নে ইউনিভার্সিটি অব মেলবর্নের গবেষকরা জন্ম দিয়েছেন অপার এক বিস্ময়। এই ইউনিভার্সিটির বেজমেন্টে প্রায় ৯০ বছর ধরে পরে থাকা এক মমির মাথার খুলি থেকে উদ্ধার করা হয়েছে, মৃতার আসল চেহারা কেমন ছিল! ধারণা করা হচ্ছে প্রায় ২০০০ বছর পূর্বে এই মহিলার মৃত্যু হয়েছিল। ‘মেরিটামুন’ নামের এই মিশরীয় সুন্দরী ১৮ থেকে ২৫ বছরের বলে ধারণা করা হচ্ছে। তার মৃতদেহ মমি করে রাখা হয়েছিল।

 

সম্প্রতি এক অডিট চলাকালীন সময়ে এই মমির শুধু মাথার অংশ পাওয়া যায়। কোনো এক অজ্ঞাত কারণে মমির বাকি অংশ পাওয়া যায়নি। তবে বাকি অংশের জন্যে গবেষকরা বসে থাকেননি। তারা এই মাথার খুলি নিয়েই চালিয়ে গেছেন গবেষণা।

 

Women

 

মেরিটামুন দেখতে কেমন ছিল, সেটা ধারণা করার চেয়ে বিজ্ঞানীরা বাস্তবে দেখতে চেয়েছিলেন। তাই বেশকিছু ধাপে তারা এই অসাধ্যকে সাধ্য করেন। তারা এই খুলির সিটিস্ক্যান করেন। ইউনিভার্সিটি অব মেলবর্ন, ভিক্টোরিয়ান ইনস্টিটিউট অব ফরেনসিক মেডিসিনের সহায়তায় সিটি স্ক্যান এবং থ্রিডি প্রিন্টারের সহায়তায় তৈরি করেন অবিকল এই তরুণীর মুখ, অন্তত বিজ্ঞানীদের দাবি সেরকমই।

 

ইউনিভার্সিটি অব মেলবর্নের হ্যারি ব্রুকস অ্যালেন মিউজিয়াম কিউরেটর ড. রায়ান জেফারিসের মতে, এই উদ্যোগ অনেক সম্ভাবনার দ্বার খুলে দেবে। যেখানে আগে এ ধরনের মমির ক্ষেত্রে জল্পনা কল্পনা করা হতো যে, মমির ব্যক্তিটি দেখতে আসলেই কেমন ছিল? এই ধরনের প্রয়াস মানুষকে প্রকৃত অনুমান করতে সহায়তা করবে।

 

জেফারিসের মতে, এটা ইউনিভার্সিটি অব মেলবর্নের ছাত্রদের জন্য বিরাট সুযোগ করে দিল। কেননা এই মিউজিয়ামে ১২০০০ এর মতো এ ধরনের এনাটমির অংশ বা স্যাম্পল রয়েছে। যা তাদের ভবিষ্যত গবেষণায় যথেষ্ট সাহায্য করবে।

 

তবে এখন এই মুখমণ্ডল আবিষ্কারের পরে বিজ্ঞানীরা মেরিটামুনের জীবনযাপন বা কিভাবে মারা গিয়েছে এই সব বিষয় নিয়ে গবেষণা করার উদ্যোগ নিয়েছে। বিজ্ঞানীদের ধারনা, এই প্রয়াস তাদের ২০০০ বছর আগের জীবনযাপন কিংবা তখনকার অনেক তথ্য পেতে সাহায্য করবে।

 

 

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X