মঙ্গলবার, ২০শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৮ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সকাল ১১:৩১
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Sunday, December 18, 2016 5:33 pm
A- A A+ Print

২৮ বছরে ১১ বিয়ে! কী পরিণতি হল মহিলার?

15

বয়স মাত্র ২৮। আর এর মধ্যেই বিয়ে করে ফেলছেন ১১ পুরুষকে! কী পরিণতি হল মহিলার? সিনেমার গল্প এবার বাস্তবে। 'ডলি কি ডোলি'-ছবিতে একের পরে এক পুরুষের সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়েছিলেন সোনম কপুর। আর রাত ফুরোলেই ঘর থেকে দামি জিনিসপত্র নিয়ে হাওয়া হয়ে যেত নায়িকা। দীর্ঘদিন এমনটাই চলার পর অবশেষে পুলিশের জালে ধরা পড়ে সে। এবার রিয়েল লাইফের সেই ঘটনারই বাস্তবিক সাক্ষী থাকল ভারত। মেঘা ভার্গব নামে বছর আঠাশের এক মহিলা ঠিক এমন কাণ্ডটাই ঘটালেন। এক বা দুই নয়, ১১জন পুরুষকে বিয়ে করে তাঁদের সর্বস্ব হাতিয়ে নিয়েছেন এই মহিলা। অবশেষে শনিবার নয়ডা থেকে তাঁকে গ্রেফতার করে পুলিশ। অক্টোবর মাসে কোচি-র লোরেন জাস্টিন পুলিশের কাছে একটি অভিযোগ দায়ের করেন। সেখানে বলা হয়, তাঁর স্ত্রী মেঘা ১৫ লাখ টাকার গয়না নিয়ে পালিয়ে গিয়েছে। তার প্রায় দু'মাস পর কেরালা পুলিশ এবং দিল্লি পুলিশ যৌথভাবে নয়ডা থেকে গ্রেফতার করে ভার্গবকে। তার বোন প্রাচী ও দেওর দেবেন্দ্র শর্মাকেও গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পুলিশ জানিয়েছে, মোট ১১জন পুরুষকে বিয়ে করেছিল মেঘা। কেরলেই মেঘার চতুর্থ শিকার ছিলেন জাস্টিন। মুলত ডিভোর্সি, দেখতে খারাপ, প্রতিবন্ধী যুবকদেরই টার্গেট করত এই মহিলা। দেখতে সুন্দরী হওয়ায় সহজেই তাকে বিশ্বাসও করে নিত ওই যুবকরা। বিয়ের পরে ওই যুবকদের সঙ্গে বেশ কয়েকদিন কাটাতো সে। তারপর সুযোগ পেলেই খাবারে ঘুমের ওষুধ মিশিয়ে সর্বস্ব হাতিয়ে পালাত। পুলিশ আরও জানিয়েছে, মেঘার আসল বাড়ি ইন্দোরে। জেরায় ওই যুবকদের সঙ্গে বিয়ে হওয়ার কথাও স্বীকার করে নিয়েছে সে। যদিও মেঘার দাবি, বিয়ে হওয়ার পরে পুরুষদের সঙ্গে সম্পর্কের অবনতি হওয়ার কারণেই মেঘা তাঁদের ছেড়ে চলে যেত। সুত্র- এবেলা

Comments

Comments!

 ২৮ বছরে ১১ বিয়ে! কী পরিণতি হল মহিলার?AmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

২৮ বছরে ১১ বিয়ে! কী পরিণতি হল মহিলার?

Sunday, December 18, 2016 5:33 pm
15

বয়স মাত্র ২৮। আর এর মধ্যেই বিয়ে করে ফেলছেন ১১ পুরুষকে! কী পরিণতি হল মহিলার?
সিনেমার গল্প এবার বাস্তবে। ‘ডলি কি ডোলি’-ছবিতে একের পরে এক পুরুষের সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়েছিলেন সোনম কপুর। আর রাত ফুরোলেই ঘর থেকে দামি জিনিসপত্র নিয়ে হাওয়া হয়ে যেত নায়িকা। দীর্ঘদিন এমনটাই চলার পর অবশেষে পুলিশের জালে ধরা পড়ে সে।

এবার রিয়েল লাইফের সেই ঘটনারই বাস্তবিক সাক্ষী থাকল ভারত। মেঘা ভার্গব নামে বছর আঠাশের এক মহিলা ঠিক এমন কাণ্ডটাই ঘটালেন। এক বা দুই নয়, ১১জন পুরুষকে বিয়ে করে তাঁদের সর্বস্ব হাতিয়ে নিয়েছেন এই মহিলা। অবশেষে শনিবার নয়ডা থেকে তাঁকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

অক্টোবর মাসে কোচি-র লোরেন জাস্টিন পুলিশের কাছে একটি অভিযোগ দায়ের করেন। সেখানে বলা হয়, তাঁর স্ত্রী মেঘা ১৫ লাখ টাকার গয়না নিয়ে পালিয়ে গিয়েছে। তার প্রায় দু’মাস পর কেরালা পুলিশ এবং দিল্লি পুলিশ যৌথভাবে নয়ডা থেকে গ্রেফতার করে ভার্গবকে। তার বোন প্রাচী ও দেওর দেবেন্দ্র শর্মাকেও গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
পুলিশ জানিয়েছে, মোট ১১জন পুরুষকে বিয়ে করেছিল মেঘা। কেরলেই মেঘার চতুর্থ শিকার ছিলেন জাস্টিন। মুলত ডিভোর্সি, দেখতে খারাপ, প্রতিবন্ধী যুবকদেরই টার্গেট করত এই মহিলা। দেখতে সুন্দরী হওয়ায় সহজেই তাকে বিশ্বাসও করে নিত ওই যুবকরা। বিয়ের পরে ওই যুবকদের সঙ্গে বেশ কয়েকদিন কাটাতো সে। তারপর সুযোগ পেলেই খাবারে ঘুমের ওষুধ মিশিয়ে সর্বস্ব হাতিয়ে পালাত।

পুলিশ আরও জানিয়েছে, মেঘার আসল বাড়ি ইন্দোরে। জেরায় ওই যুবকদের সঙ্গে বিয়ে হওয়ার কথাও স্বীকার করে নিয়েছে সে। যদিও মেঘার দাবি, বিয়ে হওয়ার পরে পুরুষদের সঙ্গে সম্পর্কের অবনতি হওয়ার কারণেই মেঘা তাঁদের ছেড়ে চলে যেত।

সুত্র- এবেলা

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X