বুধবার, ২১শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৯ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, বিকাল ৩:৩৮
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Saturday, January 21, 2017 2:37 pm
A- A A+ Print

৩০ বছর পর বিশ্বকাপের পদক পাচ্ছেন অ্যালান বোর্ডাররা

41

১৯৮৭ সালের ৮ নভেম্বর। কলকাতার ইডেন গার্ডেনে বিশ্বকাপ ক্রিকেটের ফাইনালে ইংল্যান্ডকে ৭ রানে হারিয়ে প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ জেতে অস্ট্রেলিয়া। এরপর গত ৩০ বছরে অস্ট্রেলিয়া বিশ্বকাপ জিতেছে আরও চারবার—১৯৯৯, ২০০৩, ২০০৭ ও ২০১৫ সালে। মজার ব্যাপার হচ্ছে, প্রথমবার বিশ্বকাপ জয়ের ৩০ বছর পর অবশেষে ওই বিশ্বকাপের জন্য ব্যক্তিগত পদক পেতে যাচ্ছেন অধিনায়ক অ্যালান বোর্ডার ও তাঁর সতীর্থরা। ৩০ বছর আগে ইডেনে বোর্ডারের দলের হাতে বিশ্বকাপ জয়ের ট্রফি তুলে দেওয়া হলেও অস্ট্রেলীয় দলের কোনো সদস্যকেই ব্যক্তিগত পদক দেওয়া হয়নি। সেই মেডেলই তাঁরা পেতে যাচ্ছেন রোববার সিডনিতে পাকিস্তান-অস্ট্রেলিয়া ম্যাচের মধ্যভাগে। ১৯৭৫ সাল থেকে ওয়ানডে বিশ্বকাপের ১১টি আসর হয়ে গেলেও ১৯৭৫ সালের প্রথম বিশ্বকাপজয়ী ওয়েস্ট ইন্ডিজ, ১৯৮৭ সালে চতুর্থ বিশ্বকাপ জেতা অস্ট্রেলিয়া এবং ১৯৯৬ সালে ষষ্ঠ বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়ন শ্রীলঙ্কার খেলোয়াড়েরা কোনো ব্যক্তিগত পদক পাননি। গত জুনে আইসিসির নির্বাহী কমিটির সভায় এই তিনটি বিশ্বকাপের শিরোপাজয়ী দলের খেলোয়াড়দের ব্যক্তিগত পদক দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আইসিসি সংশ্লিষ্ট ক্রিকেট বোর্ডকে ব্যক্তিগত পদকগুলো পাঠিয়ে দেবে। বোর্ডের দায়িত্ব এগুলো তাদের বিশ্বকাপজয়ী খেলোয়াড়দের হাতে তুলে দেওয়া। ২০০৩ সালের বিশ্বকাপ পর্যন্ত বিশ্বকাপ আয়োজনের খুঁটিনাটি বিষয়ে আইসিসি মাথা ঘামাত না। বিভিন্ন বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার ভার স্বাগতিক দেশগুলোর ওপরই ছেড়ে দেওয়া হতো। ১৯৮৭ ও ১৯৯৬ সালে যৌথভাবে উপমহাদেশে আয়োজিত হয়েছিল বিশ্বকাপ। ১৯৮৭ সালেও ভারত ও পাকিস্তান ছিল স্বাগতিক দেশ। ছিয়ানব্বইয়ে ভারত-পাকিস্তানের সঙ্গে যুক্ত হয় শ্রীলঙ্কাও। প্রথম তিনটি বিশ্বকাপ আয়োজিত হয় ইংল্যান্ডে। ১৯৭৫ থেকে ১৯৮৩—প্রথম তিনটি বিশ্বকাপে নাম ছিল প্রুডেন্সিয়াল ট্রফি। এই তিনবারই একই নকশার ট্রফি তুলে দেওয়া হয়েছিল চ্যাম্পিয়ন ওয়েস্ট ইন্ডিজ (১৯৭৫ ও ১৯৭৯) ও ভারতের হাতে। ১৯৮৭ সালে বিশ্বকাপের নাম ছিল পৃষ্ঠপোষক রিলায়েন্স কোম্পানির নামে। ১৯৯২ সালে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডে অনুষ্ঠিত বেনসন অ্যান্ড হেজেস বিশ্বকাপে দেওয়া হয়েছিল স্ফটিকের দারুণ একটি ট্রফি। ১৯৯৬ সালে উইলস বিশ্বকাপেও ছিল পুরোপুরি আলাদা নকশার একটি ট্রফি। ১৯৯৯ সালে ইংল্যান্ড বিশ্বকাপ থেকে আইসিসির নিজেদের তৈরি বিশ্বকাপ ট্রফি প্রচলিত হয়। ১৯৭৫-১৯৯৬ বিশ্বকাপ ট্রফি পাকাপাকিভাবে দিয়ে দেওয়া হলেও ১৯৯৯ সাল থেকে চ্যাম্পিয়ন দলের হাতে তুলে দেওয়া হয় মূল ট্রফির একটি করে রেপ্লিকা। ৩০ বছর পর বিশ্বকাপ জয়ের ব্যক্তিগত স্মারক হাতে পাবেন জেনে দারুণ খুশি সাবেক অস্ট্রেলীয় অধিনায়ক অ্যালান বোর্ডার, ‘১৯৮৭ বিশ্বকাপজয়ী অস্ট্রেলীয় দলের সব খেলোয়াড় ও কর্মকর্তা যে এভাবে মূল্যায়িত হতে যাচ্ছেন, এটি অত্যন্ত আনন্দের ব্যাপার।’ তিনি অনুষ্ঠানটিকে পুরোনো সতীর্থদের পুনর্মিলনীর একটা দারুণ সুযোগ হিসেবেও দেখছেন, ‘দারুণ ব্যাপার হতে যাচ্ছে এটি। আমরা পুরোনো সতীর্থরা আবারও একসঙ্গে মিলিত হতে যাচ্ছি এই অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে।’ সূত্র: ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া।

Comments

Comments!

 ৩০ বছর পর বিশ্বকাপের পদক পাচ্ছেন অ্যালান বোর্ডাররাAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

৩০ বছর পর বিশ্বকাপের পদক পাচ্ছেন অ্যালান বোর্ডাররা

Saturday, January 21, 2017 2:37 pm
41

১৯৮৭ সালের ৮ নভেম্বর। কলকাতার ইডেন গার্ডেনে বিশ্বকাপ ক্রিকেটের ফাইনালে ইংল্যান্ডকে ৭ রানে হারিয়ে প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ জেতে অস্ট্রেলিয়া। এরপর গত ৩০ বছরে অস্ট্রেলিয়া বিশ্বকাপ জিতেছে আরও চারবার—১৯৯৯, ২০০৩, ২০০৭ ও ২০১৫ সালে। মজার ব্যাপার হচ্ছে, প্রথমবার বিশ্বকাপ জয়ের ৩০ বছর পর অবশেষে ওই বিশ্বকাপের জন্য ব্যক্তিগত পদক পেতে যাচ্ছেন অধিনায়ক অ্যালান বোর্ডার ও তাঁর সতীর্থরা।

৩০ বছর আগে ইডেনে বোর্ডারের দলের হাতে বিশ্বকাপ জয়ের ট্রফি তুলে দেওয়া হলেও অস্ট্রেলীয় দলের কোনো সদস্যকেই ব্যক্তিগত পদক দেওয়া হয়নি। সেই মেডেলই তাঁরা পেতে যাচ্ছেন রোববার সিডনিতে পাকিস্তান-অস্ট্রেলিয়া ম্যাচের মধ্যভাগে।
১৯৭৫ সাল থেকে ওয়ানডে বিশ্বকাপের ১১টি আসর হয়ে গেলেও ১৯৭৫ সালের প্রথম বিশ্বকাপজয়ী ওয়েস্ট ইন্ডিজ, ১৯৮৭ সালে চতুর্থ বিশ্বকাপ জেতা অস্ট্রেলিয়া এবং ১৯৯৬ সালে ষষ্ঠ বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়ন শ্রীলঙ্কার খেলোয়াড়েরা কোনো ব্যক্তিগত পদক পাননি। গত জুনে আইসিসির নির্বাহী কমিটির সভায় এই তিনটি বিশ্বকাপের শিরোপাজয়ী দলের খেলোয়াড়দের ব্যক্তিগত পদক দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আইসিসি সংশ্লিষ্ট ক্রিকেট বোর্ডকে ব্যক্তিগত পদকগুলো পাঠিয়ে দেবে। বোর্ডের দায়িত্ব এগুলো তাদের বিশ্বকাপজয়ী খেলোয়াড়দের হাতে তুলে দেওয়া।
২০০৩ সালের বিশ্বকাপ পর্যন্ত বিশ্বকাপ আয়োজনের খুঁটিনাটি বিষয়ে আইসিসি মাথা ঘামাত না। বিভিন্ন বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার ভার স্বাগতিক দেশগুলোর ওপরই ছেড়ে দেওয়া হতো। ১৯৮৭ ও ১৯৯৬ সালে যৌথভাবে উপমহাদেশে আয়োজিত হয়েছিল বিশ্বকাপ। ১৯৮৭ সালেও ভারত ও পাকিস্তান ছিল স্বাগতিক দেশ। ছিয়ানব্বইয়ে ভারত-পাকিস্তানের সঙ্গে যুক্ত হয় শ্রীলঙ্কাও। প্রথম তিনটি বিশ্বকাপ আয়োজিত হয় ইংল্যান্ডে। ১৯৭৫ থেকে ১৯৮৩—প্রথম তিনটি বিশ্বকাপে নাম ছিল প্রুডেন্সিয়াল ট্রফি। এই তিনবারই একই নকশার ট্রফি তুলে দেওয়া হয়েছিল চ্যাম্পিয়ন ওয়েস্ট ইন্ডিজ (১৯৭৫ ও ১৯৭৯) ও ভারতের হাতে। ১৯৮৭ সালে বিশ্বকাপের নাম ছিল পৃষ্ঠপোষক রিলায়েন্স কোম্পানির নামে। ১৯৯২ সালে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডে অনুষ্ঠিত বেনসন অ্যান্ড হেজেস বিশ্বকাপে দেওয়া হয়েছিল স্ফটিকের দারুণ একটি ট্রফি। ১৯৯৬ সালে উইলস বিশ্বকাপেও ছিল পুরোপুরি আলাদা নকশার একটি ট্রফি। ১৯৯৯ সালে ইংল্যান্ড বিশ্বকাপ থেকে আইসিসির নিজেদের তৈরি বিশ্বকাপ ট্রফি প্রচলিত হয়। ১৯৭৫-১৯৯৬ বিশ্বকাপ ট্রফি পাকাপাকিভাবে দিয়ে দেওয়া হলেও ১৯৯৯ সাল থেকে চ্যাম্পিয়ন দলের হাতে তুলে দেওয়া হয় মূল ট্রফির একটি করে রেপ্লিকা।
৩০ বছর পর বিশ্বকাপ জয়ের ব্যক্তিগত স্মারক হাতে পাবেন জেনে দারুণ খুশি সাবেক অস্ট্রেলীয় অধিনায়ক অ্যালান বোর্ডার, ‘১৯৮৭ বিশ্বকাপজয়ী অস্ট্রেলীয় দলের সব খেলোয়াড় ও কর্মকর্তা যে এভাবে মূল্যায়িত হতে যাচ্ছেন, এটি অত্যন্ত আনন্দের ব্যাপার।’ তিনি অনুষ্ঠানটিকে পুরোনো সতীর্থদের পুনর্মিলনীর একটা দারুণ সুযোগ হিসেবেও দেখছেন, ‘দারুণ ব্যাপার হতে যাচ্ছে এটি। আমরা পুরোনো সতীর্থরা আবারও একসঙ্গে মিলিত হতে যাচ্ছি এই অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে।’ সূত্র: ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X