মঙ্গলবার, ২০শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৮ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, বিকাল ৫:৩৩
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Saturday, July 1, 2017 9:05 am
A- A A+ Print

৫ জন গ্রেপ্তার হলেই তদন্ত প্রতিবেদন

1

গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্টুরেন্টে জঙ্গি হামলার এক বছর পূর্ণ হলো আজ। এ সময় নেপথ্যের জঙ্গিদের খোঁজ করা, অর্থের যোগানদাতা, হামলার উদ্দেশ্য- সবই নিশ্চিত হয়েছেন তদন্ত সংশ্লিষ্টরা। তবে আরো কয়েকজন সন্দেহভাজন আসামি গ্রেপ্তার হলেই আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন পুলিশ কর্মকর্তারা। পুলিশের কাউন্টার টেররিটজম ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘এ ঘটনার তদন্ত প্রায় শেষ দিকে। কিন্তু বেশ কয়েকজনের সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেছে। যারা হামলার পেছনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে। এ রকম পাঁচজনকে খোঁজা হচ্ছে। পাশাপাশি আরও কয়েকজন আছে। এদের গ্রেপ্তার কিংবা অবস্থান নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত পরিপূর্ণ চার্জশিট বা প্রতিবেদন তৈরি করা যাচ্ছে না।’ দেশের বাইরের কেউ এ হামলায় জড়িত ছিল কিনা? এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘না, এখনো পর্যন্ত কাউকে পাওয়া যায়নি। তবে পরিকল্পনায় অনেকেই থাকতে পারে। যা তদন্তের পরই নিশ্চিত হওয়া যাবে।’ তদন্ত সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এ হামলা মামলার চার আসামি গ্রেপ্তার আছে। এছাড়া সেনাবাহিনীর কমান্ডো অভিযানে পাঁচজন এবং বিভিন্ন অভিযানে আরো তিনজন মারা গেছে। দুজন আদালতে জঙ্গি হামলার ঘটনায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। জঙ্গিনেতা মেজর জিয়া, বাশারউল্লাহ চকলেট ভাই, সাইফুজ্জামানসহ পাঁচ আসামিকে গ্রেপ্তারে দেশের বিভিন্ন স্থানে অভিযান অব্যাহত আছে। হামলায় সংশ্লিষ্টতায় তাদের সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য মিলেছে। এছাড়া আরো কয়েকজন জঙ্গি নানাভাবে এ হামলায় জড়িত। হামলার শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত তারা জানত এবং বিভিন্ন ভূমিকা পালন করেছে। যা বিভিন্ন সময় গ্রেপ্তার হওয়া জঙ্গিরা জানিয়েছে। একই সঙ্গে নানা তথ্য-উপাত্তেও তাদের সংশ্লিষ্টরা মিলেছে এ হামলার সঙ্গে। তাদের গ্রেপ্তারের জন্যই সময় নেওয়া হচ্ছে। তবে আর বেশিদিন দেরি করা হবে না। সেক্ষেত্রে আগামী আগস্ট কিংবা সেপ্টেম্বরে তদন্ত শেষ হতে পারে। আর এ হামলার মূল পরিকল্পনাকারী ছিলেন নব্য জেএমবির প্রধান নারায়ণগঞ্জে নিহত তামিম চৌধুরী, নূরুল ইসলাম মারজানসহ আরও কয়েকজন। যারা হামলায় মাস্টার মাইন্ডের ভূমিকা পালন করে। উল্লেখ্য, গত বছরের ১ জুলাই গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্টুরেন্টে হামলা করে জঙ্গিরা। নিহত হন তিন বাংলাদেশি নাগরিকসহ ২০ জন। অন্যদের মধ্যে ৯ জন ইতালির, সাতজন জাপানের এবং একজন ভারতীয়। এছাড়া জঙ্গিদের হামলার শুরুতেই তাদের আক্রমণে দুই পুলিশ কর্মকর্তা নিহত হন।

Comments

Comments!

 ৫ জন গ্রেপ্তার হলেই তদন্ত প্রতিবেদনAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

৫ জন গ্রেপ্তার হলেই তদন্ত প্রতিবেদন

Saturday, July 1, 2017 9:05 am
1

গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্টুরেন্টে জঙ্গি হামলার এক বছর পূর্ণ হলো আজ। এ সময় নেপথ্যের জঙ্গিদের খোঁজ করা, অর্থের যোগানদাতা, হামলার উদ্দেশ্য- সবই নিশ্চিত হয়েছেন তদন্ত সংশ্লিষ্টরা। তবে আরো কয়েকজন সন্দেহভাজন আসামি গ্রেপ্তার হলেই আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন পুলিশ কর্মকর্তারা।

পুলিশের কাউন্টার টেররিটজম ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘এ ঘটনার তদন্ত প্রায় শেষ দিকে। কিন্তু বেশ কয়েকজনের সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেছে। যারা হামলার পেছনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে। এ রকম পাঁচজনকে খোঁজা হচ্ছে। পাশাপাশি আরও কয়েকজন আছে। এদের গ্রেপ্তার কিংবা অবস্থান নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত পরিপূর্ণ চার্জশিট বা প্রতিবেদন তৈরি করা যাচ্ছে না।’

দেশের বাইরের কেউ এ হামলায় জড়িত ছিল কিনা? এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘না, এখনো পর্যন্ত কাউকে পাওয়া যায়নি। তবে পরিকল্পনায় অনেকেই থাকতে পারে। যা তদন্তের পরই নিশ্চিত হওয়া যাবে।’

তদন্ত সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এ হামলা মামলার চার আসামি গ্রেপ্তার আছে। এছাড়া সেনাবাহিনীর কমান্ডো অভিযানে পাঁচজন এবং বিভিন্ন অভিযানে আরো তিনজন মারা গেছে। দুজন আদালতে জঙ্গি হামলার ঘটনায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। জঙ্গিনেতা মেজর জিয়া, বাশারউল্লাহ চকলেট ভাই, সাইফুজ্জামানসহ পাঁচ আসামিকে গ্রেপ্তারে দেশের বিভিন্ন স্থানে অভিযান অব্যাহত আছে। হামলায় সংশ্লিষ্টতায় তাদের সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য মিলেছে। এছাড়া আরো কয়েকজন জঙ্গি নানাভাবে এ হামলায় জড়িত। হামলার শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত তারা জানত এবং বিভিন্ন ভূমিকা পালন করেছে। যা বিভিন্ন সময় গ্রেপ্তার হওয়া জঙ্গিরা জানিয়েছে। একই সঙ্গে নানা তথ্য-উপাত্তেও তাদের সংশ্লিষ্টরা মিলেছে এ হামলার সঙ্গে। তাদের গ্রেপ্তারের জন্যই সময় নেওয়া হচ্ছে। তবে আর বেশিদিন দেরি করা হবে না। সেক্ষেত্রে আগামী আগস্ট কিংবা সেপ্টেম্বরে তদন্ত শেষ হতে পারে। আর এ হামলার মূল পরিকল্পনাকারী ছিলেন নব্য জেএমবির প্রধান নারায়ণগঞ্জে নিহত তামিম চৌধুরী, নূরুল ইসলাম মারজানসহ আরও কয়েকজন। যারা হামলায় মাস্টার মাইন্ডের ভূমিকা পালন করে।

উল্লেখ্য, গত বছরের ১ জুলাই গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্টুরেন্টে হামলা করে জঙ্গিরা। নিহত হন তিন বাংলাদেশি নাগরিকসহ ২০ জন। অন্যদের মধ্যে ৯ জন ইতালির, সাতজন জাপানের এবং একজন ভারতীয়। এছাড়া জঙ্গিদের হামলার শুরুতেই তাদের আক্রমণে দুই পুলিশ কর্মকর্তা নিহত হন।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X