সোমবার, ১৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৭ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ১২:২৩
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Monday, September 5, 2016 9:29 am
A- A A+ Print

৮ গ্রামের ভয়াবহ সংঘর্ষে পুলিশসহ আহত শতাধিক

২

হবিগঞ্জের বাহুবলে ওমেরা সিলিন্ডার্স কোম্পানির পুরাতন মাল ক্রয় নিয়ে ৮ গ্রামের মধ্যে ভয়াবহ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে নারী-পুরুষ, পুলিশসহ শতাধিক লোক আহত হয়েছেন। গুরুতর আহত অবস্থায় ৮ জনকে সিলেট, ১৫ জনকে হবিগঞ্জ সদর ও ২০ জনকে বাহুবল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। অন্যদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। এ সময় ২০টি দোকান ভাঙচুর করা হয়। পুলিশ ৩ শতাধিক রাবার বুলেট ও ১৮ রাউন্ড টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, জেলার বাহুবল উপজেলার নতুন বাজার এলাকায় অবস্থিত ওমেরা সিলিন্ডার্স কোম্পানির ৪ হাজার পিস রিজেক্ট সিলিন্ডার ক্রয় করেন মিরপুরের বেলায়েত হোসেন ও দুলাল গ্রুপ। গত ২৮ আগস্ট সকালে মিরপুর বাজারের বেলায়েত গ্রুপের লোকজন সিলিন্ডার কাটানোর জন্য লেবার ও গাড়ি নিয়ে ওমেরা কোম্পানিতে প্রবেশ করতে চাইলে নতুন বাজার এলাকার শামসু মাস্টার গুপের লোকজনের বাধার মুখে ফিরে আসে। এ নিয়ে তাদের মধ্যে বেশ কয়েকদিন ধরে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। এর জের ধরে রবিবার রাত সাড়ে ৭টার দিকে দু’পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। বেলায়েতের পক্ষ নেয় তার চারগাও গ্রামের লোকজন অপর দিকে শামসু মাস্টারের পক্ষ নেয় পূর্ব জয়পুরসহ আশেপাশের ৭ গ্রামের লোকজন। সংঘর্ষের এক পর্যায়ে ওই এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। সংঘর্ষের সময় আশপাশের প্রায় ২০টি দোকান ভাঙচুর ও লুটপাট করা হয়। এতে প্রায় অর্ধকোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। খবর পেয়ে সহকারী পুলিশ সুপার রাসেলুর রহমানের নেতৃত্বে একদল দাঙ্গা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে রাবার বুলেট ও টিয়ারশ্যাল নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ বিষয়ে সহকারী পুলিশ সুপার রাসেলুর রহমান জানান, পুলিশ ৩৬৭ রাউন্ড রাবার বুলেট ও ১৮ রাউন্ড টিয়ারশ্যাল নিক্ষেপ করেছে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।

Comments

Comments!

 ৮ গ্রামের ভয়াবহ সংঘর্ষে পুলিশসহ আহত শতাধিকAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

৮ গ্রামের ভয়াবহ সংঘর্ষে পুলিশসহ আহত শতাধিক

Monday, September 5, 2016 9:29 am
২

হবিগঞ্জের বাহুবলে ওমেরা সিলিন্ডার্স কোম্পানির পুরাতন মাল ক্রয় নিয়ে ৮ গ্রামের মধ্যে ভয়াবহ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে নারী-পুরুষ, পুলিশসহ শতাধিক লোক আহত হয়েছেন। গুরুতর আহত অবস্থায় ৮ জনকে সিলেট, ১৫ জনকে হবিগঞ্জ সদর ও ২০ জনকে বাহুবল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। অন্যদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। এ সময় ২০টি দোকান ভাঙচুর করা হয়। পুলিশ ৩ শতাধিক রাবার বুলেট ও ১৮ রাউন্ড টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, জেলার বাহুবল উপজেলার নতুন বাজার এলাকায় অবস্থিত ওমেরা সিলিন্ডার্স কোম্পানির ৪ হাজার পিস রিজেক্ট সিলিন্ডার ক্রয় করেন মিরপুরের বেলায়েত হোসেন ও দুলাল গ্রুপ। গত ২৮ আগস্ট সকালে মিরপুর বাজারের বেলায়েত গ্রুপের লোকজন সিলিন্ডার কাটানোর জন্য লেবার ও গাড়ি নিয়ে ওমেরা কোম্পানিতে প্রবেশ করতে চাইলে নতুন বাজার এলাকার শামসু মাস্টার গুপের লোকজনের বাধার মুখে ফিরে আসে। এ নিয়ে তাদের মধ্যে বেশ কয়েকদিন ধরে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। এর জের ধরে রবিবার রাত সাড়ে ৭টার দিকে দু’পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। বেলায়েতের পক্ষ নেয় তার চারগাও গ্রামের লোকজন অপর দিকে শামসু মাস্টারের পক্ষ নেয় পূর্ব জয়পুরসহ আশেপাশের ৭ গ্রামের লোকজন। সংঘর্ষের এক পর্যায়ে ওই এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। সংঘর্ষের সময় আশপাশের প্রায় ২০টি দোকান ভাঙচুর ও লুটপাট করা হয়। এতে প্রায় অর্ধকোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

খবর পেয়ে সহকারী পুলিশ সুপার রাসেলুর রহমানের নেতৃত্বে একদল দাঙ্গা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে রাবার বুলেট ও টিয়ারশ্যাল নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

এ বিষয়ে সহকারী পুলিশ সুপার রাসেলুর রহমান জানান, পুলিশ ৩৬৭ রাউন্ড রাবার বুলেট ও ১৮ রাউন্ড টিয়ারশ্যাল নিক্ষেপ করেছে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X